মনুসংহিতা অনুসারে ব‍্যসন কী ? ব‍্যসনের বিভাগসমূহ প্রভাব ও পরিনাম আলোচনা কর

Manu Samhita Long Notes B.A. Sanskrit Hons and Pass – মনুসংহিতা অনুসারে ব‍্যসন কী ? ব‍্যসনের বিভাগসমূহ প্রভাব ও পরিনাম সম্পর্কে আলোচনা করা হল । ব‍্যসন বলিতে কি বোঝ? মনুসংহিতা অনুসরনে ব‍্যসনের বিভাগ সমূহ উল্লেখ পূর্বক তার স্বরূপ প্রভাব পরিণাম সম্বন্ধে বিশদ্ লেখচিত্র অঙ্কন কর?

Table of Contents

ব‍্যসন বলতে কী বোঝ? মনুসংহিতা অনুসারে ব‍্যসনের বিভাগসমূহ উল্লেখ পূর্বক তার স্বরূপ, প্রভাব ও পরিনাম সম্পর্কে আলোচনা কর।

প্রাচীন ভারতীয় রাজধর্ম সার্বিক সুষমায় সমলংকৃত শাস্ত্রনির্দেশিত কর্তব‍্যবুদ্ধিতে অবলম্বন করে কামক্রোধাদি পরিহার পূর্বক একজন অভিষেকাদি গুণযুক্ত রাজা পিতার মত নিরপেক্ষ দৃষ্টিতে প্রজাপালন করবেন এটাই ছিল শাস্ত্রকারদের আকাঙ্ক্ষিত অনুধ‍্যান। এই প্রসঙ্গে মহাভারতের শান্তি পর্বে বলা হয়েছে-

“কামক্রোধাবনাদৃত‍্য পিতেব সমদর্শনঃ শাস্ত্রজাং বুদ্ধিমাস্থায়….।।”

তাই সমস্ত ধর্মশাস্ত্রে ও মহাভারতে রাজার ইন্দ্রিয় জয়ের উপর অত‍্যন্ত গুরুত্ব আরোপ করে বলা হয়েছে যে একমাত্র জিতেন্দ্রিয় রাজাই প্রজাদের সুশাসনে ও বশে রাখতে সক্ষম হন। এই প্রসঙ্গে আচার্য মনু বলেছেন-

“ইন্দ্রিয়াণাং জয়ে যোগং সমাতিষ্টেদ্দিবানিশম্।
জিতেন্দ্রিয়ো হি শক্নোতি বশে স্থাপয়িতুং প্রজাঃ।।”

ব‍্যসন বলতে কী বোঝ?

ব‍্যসন শব্দটির আভিধানিক অর্থ হল -দুঃখ,পাপ,বিপদ প্রভৃতি। “ব‍্যসতে অনেন ইতি ব‍্যসনম্”- এই উক্তির দ্বারা ব‍্যসন হল – আপাত সুখকর ভোগবিলাসের এমন কিছু মাধ্যম বা উপকরণ যা পরিনামে দুঃখদায়ক এককথায় অভ্যাসের থেকে বিচ্যুত হওয়া নামেই ব‍্যসন।

সাধারনত ইন্দ্রিয় বা বিষয়ের প্রতি অত‍্যধিক আসক্তিকে ব‍্যসন বলে। (বি-√অস্ + ল‍্যুট্ করণে) ব‍্যসন শব্দের ব‍্যুৎপত্তিগত অর্থ হল-

“বিশেষণে অস‍্যতে নিক্ষিপ‍্যতে অন্তঃকরণম্ অনেনেতি।”

অর্থাৎ যার দ্বারা মানুষের চিত্ত বিশেষভাবে নিক্ষিপ্ত হয় তাকেই ব‍্যসন বলে। সংস্কৃত অভিধান গ্রন্থ অমরকোষ – এ অমর সিংহ ব‍্যসন শব্দের অর্থ নিরুপন প্রসঙ্গে বলেছেন-

“ব‍্যসনং বিপদি ভ্রংশে দোষ কামজ কোপডে।।”

মহর্ষি মনু ব‍্যসনগুলিকে দুরন্ত বিশেষণ দিয়ে বলেছেন-

“ব‍্যসনানি দুরন্তানি প্রযত্নেন বিবর্জয়েৎ।”

কারণ এগুলি প্রথমে সুখদায়ক হলেও অন্তে দুঃখদায়ক। এই প্রসঙ্গে অধ‍্যাপক কুল্লূকভট্ট বলেছেন-

“আদৌ সুখয়ন্তি অন্তে দুঃখানি কুর্বন্তি।”

ব‍্যসনের বিভাগগুলি কি কি ?

ব‍্যসনের বিভাগ আলোচনা প্রসঙ্গে আচার্য মনু বলেছেন- রাজা সাধারনত ধন, জনযৌবন সমৃদ্ধ জীবন যাপন করতে গিয়ে এই কাম ক্রোধজ ব‍্যসনগুলিতে আসক্ত হয়ে পড়েন।

মনুর মতে, ব‍্যসন মূলত দুই প্রকার। যথা -কামজ ব‍্যসন এবং ক্রোধজ ব‍্যসন।

কাম তথা কামনাজাত ব‍্যসনগুলি দশপ্রকার এবং ক্রোধজ ব‍্যসন আটপ্রকার।

“দশ কামসমুত্থানি তথাষ্টৌ ক্রোধজানি চ।”

ব‍্যসনের বিভাগসমূহ উল্লেখ পূর্বক স্বরূপ আলোচনা

কামনা-বাসনা জাত কামজ ব‍্যসনগুলি দশ প্রকার। যথা- i)মৃগয়া ii)পাশাখেলা iii)দিবানিদ্রা iv) পরনিন্দা  v) মদ‍্যপান vi) স্ত্রীসম্ভোগ vii) নৃত্য viii) গীত ix) বাদ্য এবং x) বৃথাভ্রমণ।

ধর্মশাস্ত্রকার মনু কামজ ব‍্যসনগুলি আলোচনা প্রসঙ্গে বলেছেন –

“মৃগয়াক্ষো দিবাস্বপ্নঃ পরিবাদঃ স্ত্রীয়ো মদঃ।
তৌর্যত্রিকং বৃথাট‍্যা চ কামজো দশকো গনঃ।।

অর্থাৎ মৃগয়া, পাশাখেলা, দিবানিদ্রা, পরনিন্দা, স্ত্রীজনে আসক্তি, মদ‍্যপান জনিত মত্ততা, নৃত‍্য-গীত-বাদ‍্য এবং বৃথা ভ্রমন – এই দশ প্রকার কামজ ব‍্যসন।

ক্রোধ থেকে উৎপন্ন ক্রোধজ ব‍্যসন মোট আটপ্রকার।

যথা- i)পৈশুন‍্য,ii)সাহস, iii)দ্রোহ,iv) ঈর্ষা,v) অসূয়া, vi)দন্ডপারূষ‍্য, vii) বাকপারূষ‍্য, viii) অর্থদূষন।

ক্রোধজ ব‍্যসনের আলোচনা প্রসঙ্গে আচার্য মনু বলেছেন-

“পৈশুন‍্যং সাহসং দ্রোহ ঈর্ষাসূয়ার্থদূষনম্।
বাকদন্ডজং চ পারূষ‍্যং ক্রোধজোঅপি গনোঅষ্টকঃ।।

অর্থাৎ পৈশুন‍্য অর্থাৎ অজানা দোষ আবিষ্কার, সাহস অর্থাৎ সজ্জন ব‍্যক্তির বধ, বন্ধন প্রভৃতির কার্য, দ্রোহ অর্থাৎ গোপন হত‍্যা,ঈর্ষ‍্যা অপরের গুণে অসহিষ্ণুতা, অসূয়া অর্থাৎ অপরের গুণে দোষ আবিষ্কার, অর্থদূষণ অর্থাৎ অর্থের আদান প্রদান ও অপহরন জনিত দোষ, বাক্ পারুষ‍্য অর্থাৎ পরুষবাক‍্য ও দণ্ডপারুষ‍্য অর্থাৎ কঠোর দণ্ডবিধান- এই আটপ্রকার ক্রোধজ ব‍্যসন।

ব‍্যসনের প‍্রভাবগুলি কি কি ?

উভয় প্রকার ব‍্যসনের গুনাগুন বিচার প্রসঙ্গে আচার্য মনু বলেছেন-

“পানমক্ষাঃ স্ত্রিয়শ্চৈব মৃগয়া চ যথাক্রমম্।
এতৎ কষ্টতমং বিদ‍্যাচ্চতুষ্কং কামজ গণে।।”

অর্থাৎ দশপ্রকার কামজ ব‍্যসনগুলির মধ‍্যে মদ‍্যপান, পাশাখেলা, নারীসম্ভোগ ও মৃগয়া অধিক কষ্টদায়ক। আবার আটপ্রকার ক্রোধজ ব‍্যসনের মধ‍্যে দণ্ডপারুষ‍্য, বাকপারুষ‍্য ও অর্থদূষন অধিক কষ্টদায়ক।

কিন্তু এই উভয়ক্ষেত্রে আবার পরেরটি অপেক্ষা পূর্বের ব‍্যসনটি অধিক গুরুত্বপূর্ণ-

“পূর্বং পূর্বং গুরুতরং বিদ‍্যাদ্ ব‍্যসনমাত্মবান্।”

ব‍্যসনাসক্ত নরপতি ঐহ‍্যিক ও পারত্রিক এই উভয়বিধ শ্রেয় লাভেই বঞ্চিত হন। মনু তার উদাহরণ দিতে গিয়ে কয়েকজন রাজার নাম উল্লেখ করে বলেছেন-

“বেনো বিনষ্টোঅবিনয়ান্নহুষশ্চৈব পার্থিবঃ।
সুদাঃ পৈজবনশ্চৈব সুমুখো নিমিরেব চ।।”

অর্থাৎ বেন, নহুষ,সুদা, পৈজবন, সুমুখ ও নিমি প্রভৃতি রাজারা ব‍্যসনে আসন্ন হওয়ায় অকালে বিনাশ প্রাপ্ত হয়েছিলেন।

আবার ইন্দ্রিয় জয়ের মাধ‍্যমে ব‍্যসন থেকে দূরে থাকায় যে সব রাজারা উন্নতি লাভ করেছেন তাদের মধ‍্যে উল্লেখযোগ্য হল আচার্য মনু(রাজ‍্যলাভ) কুবের(ঐশ্বর্যলাভ), বিশ্বামিত্র (ব্রাহ্মণত্বলাভ) করেছিলেন-
“পৃথুস্তু বিনয়াদ্ রাজ‍্যং প্রাপ্তবান্ মনুরেব চ।
কুবেরশ্চ ধনৈশ্বর্যং ব্রাহ্মণ‍্যঞ্চৈব গাধিজঃ।।”

দশপ্রকার কামজ ব‍্যসনের প্রভাবগুলি আলোচনা করা হল

ক) মৃগয়া ব‍্যসনের প‍্রভাব

প্রানী হিংসা মহাপাপ। হিংসার দ্বারা ভালো কাজ হয়না। তাছাড়া প্রাকৃতিক বিপর্যয় ঘটে এবং প্রাণহানির আশঙ্কা থাকে।

খ)পাশাখেলা ব‍্যসনের প‍্রভাব 

পাশা খেলার মাধ্যমে বন্ধু শত্রুতে পরিণত হয়। বন্ধুত্বের হানি ঘটে।পাণ্ডবেরা তথা যুধিষ্ঠির পাশা খেলার মাধ্যমে রাজ্যচ্যুত হয়েছিলেন।

গ) দিবানিদ্রা ব‍্যসনের প‍্রভাব

দিবানিদ্রা আলস্যের একটি স্তর, এর ফলে শরীর নষ্ট হয। মেদ বাড়ে ও কাজেরও ক্ষতি হয।

ঘ) পরনিন্দা ব‍্যসনের প‍্রভাব

নিজের দোষ না দেখে পরের দোষ দেখলে তা উন্নতির পথে বাধা হয়ে দাঁড়ায।

ঙ) মদ্যপান ব‍্যসনের প‍্রভাব

মদ্যপানের ফলে অর্থ ও বুদ্ধি  উভয়েই নষ্ট হয।

চ) স্ত্রীসম্ভোগ ব‍্যসনের প‍্রভাব

এর ফলে কর্মে অনাসক্তি ঘটে এবং ধর্ম জ্ঞান লোপ পায।

ছ) নৃত‍্য,গীত ও বাদ‍্য ব‍্যসনের প‍্রভাব

এই তৌর্যত্রিকগুলি মানুষের ইন্দ্রিয়গুলিকে উত্তেজিত করে তোলে।

জ)বৃথাভ্রমন ব‍্যসনের প‍্রভাব

এতে অর্থ,মন ও সময়ের অপচয় ঘটে।

আটপ্রকার ক্রোধজ ব‍্যসনের প্রভাব আলোচনা করা হল

পৈশুন‍্য কামজ ব‍্যসনের প্রভাব

কোন কিছু না জেনে পরের দোষ প্রকাশে শত্রুতা বাড়ে।

সাহস কামজ ব‍্যসনের প্রভাব

সাধু ব্যক্তিকে অকারণে বন্ধন ও নিগ্রহ মহাপাপ।

দ্রোহ কামজ ব‍্যসনের প্রভাব

ছলনা পূর্বক হত্যার ফলে যে পাপ সৃষ্টি হয় তা থেকে মুক্তি লাভ করা অসম্ভব।

ঈর্ষা কামজ ব‍্যসনের প্রভাব

অপরের গুনে অসহিষ্ণুতা উন্নতি লাভের প্রধান বাধা।

অসূয়া কামজ ব‍্যসনের প্রভাব

গুন না  দেখে শুধু অন্যের দোষ দেখলে তা উন্নতির পথে প্রধান বাধা হয়ে দাঁড়ায।

দন্ডপারুষ‍্য কামজ ব‍্যসনের প্রভাব

কঠোর দণ্ড প্রয়োগের ফলে যে অঙ্গহানি বা মৃত্যু হয় তা কখনো ফিরিয়ে দেওয়া সম্ভব নয়।

আক্রোশবশত গালিগালাজ মানুষকে অপ্রিয় করে তোলে।

অর্থদূষন কামজ ব‍্যসনের প্রভাব

টাকা ধার নিয়ে পরিশোধ না করলে দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেওয়া হয় এবং ধ্বংসের পথ প্রশস্ত হয়।

সর্বব‍্যসনের মূল কারণ:-

কামজ ও ক্রোধজ ব‍্যসনগুলির মূলে রয়েছে লোভ। হিতোপ্রদেশে তাই বলা হয়েছে-
“লোভাৎ ক্রোধঃ প্রভবতি, লোকাৎ কামঃ প্রজায়তে।।”
লোভ হতে লোভনীয় বস্তুর বাস্তব উপভোগের যে ইচ্ছা, তারই নাম কাম। কামনার অপূরনে চিত্তের যে ক্ষোভ তাই ক্রোধ নামে পরিচিত। তাই মনু সর্বপ্রকারে এই লোভকে জয় করার নির্দেশ দিয়েছেন-
“তং যত্নেন জয়েল্লোভং….।”

ব‍্যসনের অপকারিতা:-

কামজ ব‍্যসনে আসক্ত রাজা ধর্ম ও অর্থ লাভে অসমর্থ হন এবং ক্রোধজ ব‍্যসনে প্রবৃত্ত রাজা ক্ষোভ উৎপাদন করে তার দ্বারা নিজের শারীরিক বিনাশও সাধন করেন- এটিই ঐহ‍্যিক ক্ষতি। মহর্ষি মনু ব‍্যসনকে মৃত‍্যু অপেক্ষা অধিক কষ্টপ্রদ বলেছেন। কারণ মৃত‍্যু কষ্টকর হলেও নির্ব‍্যসন ব‍্যক্তি দেহত‍্যাগের পর স্বর্গসুখ ভোগ করেন। কিন্তু ব‍্যসনাসক্ত মানুষ মৃত‍্যুযন্ত্রনা অনুভব করার পরও নরকবাসের অসহনীয় কষ্ট পেতে থাকেন-

“ব‍্যসনস‍্য চ মৃত‍্যোশ্চ ব‍্যসনং কষ্টমুচ‍্যতে।
ব‍্যসন‍্যধোঅধো ব্রজতি স্বর্যাত‍্যব‍্যসনী মৃতঃ।।”

ব‍্যসন জয়ের উপকারিতা:-

প্রজা শাসনের জন‍্য নিষ্কলঙ্ক চরিত্র, আদর্শবান এবং পুরুষার্থ হওয়ার প্রয়োজনে রাজা উক্ত ব‍্যসনগুলি সযত্নে বর্জন করবেন। মহামতি কৌটিল‍্য কামক্রোধের সঙ্গে মদহর্ষাদি যোগ করে ষড় রিপুর সম্পর্কে রাজাকে সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন-
“তস্মাদরিষড়বর্গত‍্যাগেন ইন্দ্রিয়জয়ং কুর্বীত।”
এই সতর্কতা সাধারন পুরুষের ক্ষেত্রেও প্রযোজ‍্য।

ইন্দ্রিয়পরায়ণ রাজা এবং ব‍্যসনাসক্ত রাজা প্রজানুরঞ্জকরূপে বিবেচিত হন না। সুতরাং নিজের ও রাজ‍্যের মঙ্গলের জন‍্য ব‍্যসনের বিষয় পরিণামের কথা চিন্তা করে প্রত‍্যেক রাজাই ইন্দ্রিয় জয়ে অবশ‍্যই যত্নবান হওয়া উচিত।

ব‍্যসনের পরিনাম কি ?

সমস্ত ব্যসনগুলি ক্ষতিকর হলেও সমান ক্ষতিকর নয। যেমন – কামজ ব্যসনগুলির মধ্যে মদ্যপান, পাশাখেলা,স্ত্রীসম্ভোগ এবং মৃগয়া -এই চারটি অধিকতর ক্ষতিকর ।  আর ক্রোধজ গুলির মধ্যে বাকপারুষ‍্য,দন্ডপারুষ‍্য এবং অর্থদূষণ এই তিনটি অধিকতর ক্ষতিকর।

উভয়বিদ ব‍্যসনই ক্ষতিকর বলে গণ্য হয়। কিন্তু সকল ব‍্যসণের মূল কারণ হল লোভ। কিন্তু মনু কামজব‍্যসনগুলিকে     ক্রোধজ ব‍্যসন  অপেক্ষা বেশি ক্ষতিকর বলেছেন। কারণ কামজ ব‍্যসনগুলি কেবল রাজার ধর্ম ও অর্থ কে নষ্ট করে।  কিন্তু ক্রোধজ ব‍্যসনগুলি কেবল এগুলির সঙ্গে রাজার জীবন নষ্ট করে।

এই উপরোক্ত সাতটি ব‍্যসনের মধ্যে পূর্ববর্তী ব‍্যসনগুলি পরবর্তী ব‍্যসন অপেক্ষা বেশি ক্ষতিকর বলে মনু নির্দেশ দিয়েছেন। –

“সপ্তকস‍্যাস‍্য বর্গস‍্য সবত্রৈবানুষঙ্গিনঃ।
পূর্বং পূর্বং গুরুতরং বিদ‍্যাদ্ ব‍্যসনমাত্মবান্।।”

মনুসংহিতা সপ্তম অধ্যায় রাজধর্ম হতে অন্যান্য পোস্ট গুলি

Leave a Comment