(টীকা) হরিবংশ পুরাণ-সংস্কৃত সাহিত্যের ইতিহাস

সংস্কৃত সাহিত্যের ইতিহাস হরিবংশ পুরাণ ( Harivansh purana ) সম্পর্কে আলোচনা করা হল । হরিবংশ পুরাণ টীকা লেখ ।

(টীকা) হরিবংশ পুরাণ ( Harivansh purana )


ভূমিকা –

মহাভারতের অষ্টাদশ পর্বের অতিরিক্ত অংশ বা খিল পর্বের অন্তর্গত একে আবার হরিবংশ পুরাণ বলা হয।


হরিবংশের বিষয়বস্তু-

এই অংশের প্রবক্তা ব্যাসদেব। ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্ম বৃত্তান্ত এর মূল বিষয়বস্তু তাছাড়া নানা প্রকার স্তব-স্তুতির দ্বারা বিষ্ণুর মহিমা কীর্তন দেখা যায় এর মোট শ্লোক সংখ্যা ১৫৩৭৪টি।

হরিবংশের বিভাগঃ-

তিনটি অংশে বিভক্ত।


i) হরিবংশ পর্বঃ-

এই পর্বে দেখা যায় রাজা জন্মেঞ্জয় বৈশম্পায়ন এর কাছ থেকে বৃশ্চিক বংশের ইতিহাস শুনতে চাইলে তিনি ক্রমে হরি বংশের বর্ণনা করেন এখানে শ্রীকৃষ্ণকে বিষ্ণুর অবতার রূপে বর্ণনা করা হয়েছে।


ii) বিষ্ণু পর্বঃ-

বিষ্ণু পর্বে বর্ণিত হয়েছে বিষ্ণুরূপি শ্রীকৃষ্ণের জীবন ইতিহাস।

iii) ভবিষ‍্য পর্বঃ-

এই পর্বে ভবিষ্যৎ কালের বর্ণনা করা হয়েছে বিষ্ণুর বিভিন্ন অবতার যেমন বরাহ নৃসিংহ প্রভৃতি বর্ণনা করে বিভিন্ন উপাখ্যান বর্ণিত হয়েছে এই পর্বটি পৌরাণিক কাহিনীর সংকলন।


উপসংহারঃ-

ভাষা ও বিষয়বস্তুর দিক দিয়ে এটি সম্পূর্ণ পুরাণের মতো বা মহাভারতের প্রক্ষিপ্ত অংশ যা একজনের দ্বারা বা এক সময়ের রচনা নয।

হরিবংশ পুরাণ ( Harivansh purana )এর অন্য একটি পোস্ট দেখুন

সংস্কৃত সাহিত্যের ইতিহাস– হরিবংশ পুরাণ

সংস্কৃত সাহিত্যের ইতিহাসের অন্যান্য টীকা গুলি পড়ুন

Join Our Facebook Page

Leave a Comment