সিদ্ধান্তকৌমুদী: সুপ্তিঙন্তং পদম্

সিদ্ধান্তকৌমুদী: সুপ্তিঙন্তং পদম্

সিদ্ধান্তকৌমুদী – সুপ্তিঙন্তং পদম্


উৎস:- আচার্য ভট্টোজি দীক্ষিত সিদ্ধান্তকৌমুদী গ্রন্থের পূর্বার্ধে এই পাণিনীয় সূত্রটির আলোচনা করেছেন।

বৃত্তি :- সুবন্তং তিঙন্তং চ পদস্থং জ্ঞং স‍্যাৎ।

সূত্রার্থ:- সুবন্তের ও তিঙন্তের পদসংজ্ঞা হয়।

সুপ্তিঙন্তং পদম্ সূত্রব‍্যাখ‍্যা:-

ব‍্যাকরণের একটি পারিভাষিক সংজ্ঞা হল পদ। সুপ্ চ তিঙ্ চ সুপ্তিঙৌ, তৌ অন্তে যস‍্য তৎ সুপ্তিঙন্তম্। প্রথমে সুপ্ ও তিঙ্ শব্দের দ্বন্দ্বসমাস। পরে অন্তশব্দের সঙ্গে বহুব্রীহি সমাস।অন্ত শব্দটি দ্বন্দ্ব সমাসের পরে যুক্ত হওয়ায় বিশেষ‍্য হিসাবে পাওয়া যাবে শব্দস্বরূপ। সুতরাং সূত্রের অর্থ হবে সুবন্ত যে শব্দ এবং তিঙন্ত যে শব্দ তাদের পদ বলে। সুপ্ ও তিঙ্ উভয়েই প্রত‍্যাহার। প্রথম ক্ষেত্রে প্রথমবার একবচন সু আদি এবং সপ্তমীর বহুবচন সুপ্ এর পকার অন্ত‍্য। এই দুয়ে মিলে সুপ্ প্রত‍্যাহার। এর দ্বারা সু ঔ জস্ ইত‍্যাদি সেই সমস্ত বিভক্তিগুলিকে বোঝাবে যেগুলি প্রাতিপদিকের সঙ্গে যুক্ত  হয়। দ্বিতীয় ক্ষেত্রে প্রথম পুরুষ একবচন তিপ্ বিভক্তির তি হল আদি এবং শেষ বিভক্তি মহিঙ্ -এর  ঙকারহল অন্ত‍্য। এই দুয়ে মিলে তিঙ্ প্রত‍্যাহার, এর দ্বারা বোঝাবে তিপ্, তস্, ঝি ইত্যাদি সেই সমস্ত বিভক্তিকে, যেগুলি ধাতুর সঙ্গে যুক্ত হয়। নরঃ, নরৌ, নরাঃ ইত্যাদি সুবন্ত পদ্ এবং ভবতি, ভবতঃ ভবন্তি ইত্যাদি তিঙন্ত পদ।

Leave a Comment