সিদ্ধান্তকৌমুদী: বৃদ্ধিরেচি

সিদ্ধান্তকৌমুদী: বৃদ্ধিরেচি

সিদ্ধান্তকৌমুদী – বৃদ্ধিরেচি


উৎস:- আচার্য ভট্টোজি দীক্ষিত সিদ্ধান্তকৌমুদী গ্রন্থের পূর্বার্ধে এই পাণিনীয় সূত্রটির আলোচনা করেছেন।

বৃত্তি :- আদেচি পরে বৃদ্ধিরেকাদেশঃ স‍্যাৎ।

অর্থ:- অ বর্ণের পর এচ্ থাকলে পূর্ব ও পরের স্থানে বৃদ্ধি একাদেশ হয়।

বৃদ্ধিরেচি ব‍্যাখ‍্যা

আদ্ গুনঃ সূত্র থেকে আৎ পদের অনুবৃত্তি হওয়ায় অর্থ হয় অবর্ণের পর এচ্ (এ,ও,ঐ,ঔ) থাকলে সন্ধিতে পৃর্ব ও পরের স্থানে বৃদ্ধি একাদেশ হয়। বৃদ্ধি বলতে আ, ঐ এবং ঔ বোঝায়।

লক্ষ‍্য করার বিষয় অবর্ণের পর যে কোনো স্বরবর্ণ থাকলে অবর্ণ এবং ঐ স্বরের সন্ধিতে গুন একাদেশ আদ্ গুনঃ সূত্রানুযায়ী প্রাপ্ত। আবার বৃদ্ধিরেচি সূত্রে বলা হচ্ছে যে অবর্ণের পল এ,ও,ঐ,ঔ থাকলে বৃদ্ধি একাদেশ হবে। সূত্র দুটি তাহলে পরস্পরবিরোধী। তবে প্রশ্ন ওঠে যে গঙ্গা + ওঘঃ ইত্যাদি উদাহরণে কোন্ সূত্রানুযায়ী কাজ হবে আদ্ গুনঃ সূত্র অথবা বৃদ্ধিরেচি সূত্র ? এর সমাধান খুঁজতে হবে সূত্র দুটির মর্যাদার কথা ভেবে। এখানে আদ্ গুনঃ সূত্রটি সাধারন বিধি বা উৎসর্গবিধি আর বৃদ্ধিরেচি সূত্রটি বিশেষবিধি বা অপবাদবিধি। যাবতীয়স্থলে অপবাদবিধিই বলীয়ান্ গণ‍্য হয়, কেন না তাকে স্থান না ছেড়ে দিলে তার আর অন‍্যত্র অবকাশ থাকে না। নিরবকাশত্বই অপবাদের সর্বাতিশায়ী হওয়ায় যোগ‍্যতা। তাই অপবাদকে বলা হয় বাধক।

কৃষ্ণস‍্য একত্বম্ এরূপ ষষ্ঠীসমাসে বিভক্তির লোভ করে কৃষ্ণ + একত্বম্ অবস্থায় বৃদ্ধিরাদৈচ্ সূত্রের সহায়তায় বৃদ্ধিরেচি সূত্র দ্বারা পূর্বের অকার এবং পরবর্তী এ কারের স্থানে বৃদ্ধি একাদেশ প্রাপ্তিতে স্থানেঅনতরতমঃ সূত্র দ্বারা কন্ঠ (অ) এবং কন্ঠ তালু (এ) বিশিষ্ট বর্ণের স্থানে কন্ঠতালুবিশিষ্ট বৃদ্ধি বর্ণ ঐকার আদেশ করলে কৃষ্ণৈকত্বম্ পদ সিদ্ধ হয়।

Leave a Comment