সিদ্ধান্তকৌমুদী: পরঃ সন্নিকর্ষঃ সংহিতা

সিদ্ধান্তকৌমুদী: পরঃ সন্নিকর্ষঃ সংহিতা

সিদ্ধান্তকৌমুদী – পরঃ সন্নিকর্ষঃ সংহিতা


উৎস:- আচার্য ভট্টোজি দীক্ষিত সিদ্ধান্তকৌমুদী গ্রন্থের পূর্বার্ধে এই পাণিনীয় সূত্রটির অবতারনা করেছেন।

বৃত্তি:- বর্ণানামতিশয়িতঃ সন্নিধিঃ সংহিতাসংজ্ঞঃ স‍্যাৎ।

সূত্রার্থ- বর্ণসমূহের অত‍্যধিক সামীপ‍্যকে সংহিতা বলে।

পরঃ সন্নিকর্ষঃ সংহিতা সূত্রব‍্যাখ‍্যা:-

একাধিক বর্ণের মধ‍্যে যদি অত্যন্ত নৈকট‍্য থাকে, দুটি বর্ণ যদি পরস্পরের একেবারে কাছাকাছি অবস্থিত হয়, তবে সেখানে সংহিতা হয়েছে বলা যাবে। কিন্তু লক্ষ‍্য করলে দেখা যায় প্রকৃতপক্ষে দুটি বর্ণের সামীপ‍্য সম্ভব নয়। কারণ, দুটি বর্ণ কখনো এককালে অবস্থান করতে পারে না। যখন প্রথম বর্ণটি উচ্চারিত হয়, তখন দ্বিতীয় বর্ণটি নেই। আবার যখন দ্বিতীয় বর্ণটি উচ্চারিত হয় তখন প্রথম বর্ণটি থাকেনা।
এই সমাধানে বলা হয়েছে দুটি বর্ণের উচ্চারণ কালের মধ‍্যে সম্ভাব‍্য সবচেয়ে কম ব‍্যবধানকাল হল অর্ধমাত্রা। দুটি বর্ণের মধ‍্যে অত‍্যন্ত সামীপ‍্যের অর্থ হল তাদের পরপর উচ্চারণকালের মধ‍্যে কালের ব‍্যবধান অর্ধমাত্রাই বেশি নয়। এরকম হলেই তাদের মধ‍্যে সংহিতা আছে বুঝতে হবে। শব্দশাস্ত্রে সংহিতা একটি পারিভাষিক সংজ্ঞা।

Leave a Comment