অর্থশাস্ত্র: ব্যাখ্যা – ১

অর্থশাস্ত্র হতে ব্যাখ্যা – ১ । “সহায়সাধ‍্যং রাজত্বং চক্রমেকং ন বত‍র্তে। কুর্বীত সচিবাংস্তস্মাত্তেষাং চ শৃণুয়ান্মতম্।।”

অর্থশাস্ত্র হতে ব্যাখ্যা – ১


“সহায়সাধ‍্যং রাজত্বং চক্রমেকং ন বত‍র্তে।
কুর্বীত সচিবাংস্তস্মাত্তেষাং চ শৃণুয়ান্মতম্।।”

অনুবাদ:-

রাজ্য শাসন কার্য সহায়সাধ্য। যেমন গাড়ির একটি চাকা অন্য চাকার সাহায্য ছাড়া চলে না। তেমনি রাজারও সহায়ক ব্যতিরেকে রাজকার্য চলেনা বলে রাজা সচিব দিগকে নিযুক্ত করবেন এবং তাদের মতামত শুনবেন।

উৎস:-

আচার্য কৌটিল্য রচিত অর্থশাস্ত্রম্ গ্রন্থের বিনয়াধিকারিকে প্রথম অধিকরণের ইন্দ্রিয়জয়ঃ রাজর্ষিবৃত্তম নামক সপ্তম অধ্যায়  থেকে উপরিউক্ত উদ্ধৃত হয়েছে।

প্রসঙ্গ

রাজার সুষ্ঠুভাবে প্রশাসন পরিচালনার জন্য সচিব ও অমাত‍্য নিয়োগ প্রসঙ্গে এই শ্লোকটির অবতারণা করা হয়েছে।

ব্যাখ্যা

বিশাল রাজ্যে রাজ্যভার বহন করা খুব সহজ সাধ‍্য নয়। বিশেষ করে একার পক্ষে তো একবারেই নয়। তাই রাজা তার রাজ্যকে সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করার জন্য কিছু অমাত্য বা সচিব নিযুক্ত করবেন। একটি উদাহরণের সাহায্যে এ বিষয়টিকে আরো স্পষ্ট করে দিতে পারে। শকট অর্থাৎ গাড়ির যেমন একটি টাকার মাধ্যমে চলা সম্ভব নয়। কারণ একটি চালনা করতে হলে একের অতিরিক্ত চাকার প্রয়োজন হয়।  আবার পাখির আকাশে উড়ে বেড়ানোর জন্য তার প্রয়োজন হয় দুটি ডানার। একটি ডানার  সাহায্যে পাখির আকাশে ওড়া কিন্তু কখনো সম্ভব নয়। সেভাবেই রাজার সহায় বা অমাত‍্য ছাড়া রাজ্য শাসন সম্ভব নয়।  তাই মৎস্য পুরাণে বলা হয়েছে – “রাজা তস‍্য রাজস‍্য সুশাসনং কর্তুম্ ইচ্ছতি চেৎ তর্হি। তেন সচিব নিয়োগঃ অপরিহার্য ভবতি।” কারন সচিব নিযুক্তের উপর রাজ্যের স্থায়িত্ব নির্ভর করে।  মনুসংহিতার সপ্তম অধ্যায়ে বলা হয়েছে অমাত‍্য বা  সচিব ছাড়া রাজার রাজ‍্য শাসন কখনোই সম্ভব নয়।

“অপি যৎ কর্ম তদপি একেন দুষ্করম্।
বিশেষ সহায়েন কিমু রাজ‍্যং সহোদয়ম্।।”

অতএব রাজা উপযুক্ত সচিব রাজকার্যে নিযুক্ত করবেন এবং তাদের মতও তিনি শ্রবণ করবেন।

এটাই হলো শ্লোকটির অর্থ।

Leave a Comment