কালিদাস শর্ট প্রশ্ন উত্তর – সংস্কৃত সাহিত্যের ইতিহাস | Kalidas Short question answer

সংস্কৃত সাহিত্যের ইতিহাস কালিদাস প্রশ্ন উত্তর (৪র্থ-৫ম খৃঃ) কালিদাসের কাল , লেখা নাটক অভিজ্ঞানশকুন্তলম্ বিক্রমোর্বশীয়ম্ মালবিকাগ্নিমিত্রম্ । সংস্কৃত সাহিত্যের ইতিহাসে মহাকবি কালিদাসের রচনাগুলির গুরুত্ব প্রতিপাদন করা হল। Kalidas Sanskrit Short question answer Notes Abhijnanasakuntalam – Short Answer Type Questions and Answers (2 Marks) Abhijnanasakuntalam – Short Answer Type Questions and Answers

Table of Contents

সংস্কৃত সাহিত্যের ইতিহাস কালিদাস

কালিদাস – উইকিপিডিয়া হতে মহাকবি কালিদাস জীবনী জানুন

কালিদাস প্রশ্ন উত্তর

১) কালিদাসের কাল নির্ণয় কর।

উঃ=> কালিদাসের কাল নিয়ে পন্ডিতদের মধ্যে বিভিন্ন মত পরিলক্ষিত হয়। রবীন্দ্রনাথ তাই বলেছিলেন- “হায়রে কবে কেটে গেছে কালিদাসের কাল। পন্ডিতেরা তর্ক করে লয়ে তারিখ সাল”। তবু সাধারনভাবে একথা স্বীকৃত যে, কালিদাস গুপ্ত সম্রাট দ্বিতীয় চন্দ্রগুপ্ত বা বিক্রমাদিত্যের সভাকবি ছিলেন । তাই সবদিক বিবেচনা করে পন্ডিতগন ৩৮০ শ্লোকে ৪৫৭ খৃঃ পর্যন্ত সময়কে কালিদাসের আবির্ভাবকাল রূপে উল্লেখ করে থাকেন।

২) কালিদাসের লেখা নাটকগুলির সংখ্যা, নাম এবং শ্রেনী উল্লেখ কর ।

উঃ=> কালিদাস মোট তিনটি নাটক রচনা করেছেন- মালবিকাগ্নিমিত্রম্ নাটক, বিক্রমোর্বশীয়ম্ ত্রোটক ও অভিজ্ঞানশকুন্তলম্ নাটক

৩) ঐতিহাসিক ঘটনাবৃত্ত অবলম্বনে রচিত কালিদাসের একটি নাটকের নাম উল্লেখ কর। এতে কোন রাজবংশের কথা আছে ?

উঃ=> কালিদাস ঐতিহাসিক ঘটনা অবলম্বনে মালবিকাগ্নিমিত্রম্ নাটকটি রচনা করেন।
এই নাটকে শুঙ্গ রাজবংশের কথা আছে । শুঙ্গ রাজবংশের প্রতিষ্ঠাতা পুষ্যমিত্র শুঙ্গের পুত্র অগ্নিমিত্র এই নাটকের নায়ক।

৪) ত্রোটক-এর বৈশিষ্ট‍্য উল্লেখ কর। বিক্রমোর্বশীয়ম্ কি সার্থক ত্রোটক?

উঃ- সাহিত‍্যদর্পণ-এর প্রদত্ত লক্ষণানুসারে দিব‍্য পুরুষ ও মানুষের বৃত্তান্ত অবলম্বনে পাঁচ, সাত, আট কিংবা নয় অঙ্কে রচিত এবং প্রত‍্যেক অঙ্কে বিদূষকের উপস্থিতিযুক্ত উপরূপক শ্রেনীর দৃশ‍্যকাব‍্য হল ত্রোট।
           এই নাটকের নায়ক পুরূরবা  মানুষ বা দেবতা নয়, এতে পাঁচটি অঙ্ক আছে এবং পাঁচটি অঙ্কের প্রতিটিতে না হলেও তিনটি অঙ্কে (২,৩,৫) বিদূষকের উপস্থিতি থাকার জন‍্য বিক্রমোর্বশীয়ম্ একটি সার্থক ত্রোটক।

৬) বিক্রমোর্বশীয়ম্ নাটকের কোন অংশটি কাব‍্যগুনে উৎকৃষ্ট?

উঃ- বিক্রমোর্বশীয়ম্ নাটকের চতুর্থ অঙ্কটিই কাব‍্যগুনে উৎকৃষ্ট। এখানে দেখা যায় যে ঊর্বশী নিজের অজ্ঞাতে একদিন স্ত্রীলোকের পক্ষে নিষিদ্ধ এক কুঞ্জে প্রবেশ করে লতায় পরিনত হলেন। পুরুরবা ঊর্বশীকে খুঁজে না পেয়ে উন্মাদের মতো হয়ে গেলেন। প্রেমোন্মাদ রাজা বৃক্ষ-লতা-পশু-পক্ষীকে প্রিয়তমার সংবাদ জিজ্ঞাসা করতে লাগলেন। অনবদ‍্য কাব‍্যভাষায় ও অত‍্যন্ত মর্মস্পর্শীভাবে নাট‍্যকার এ অবস্থার বর্ণনা করেছেন। তাছাড়া এখানে অভিনয়ের সঙ্গে নৃত্য-গীতের অসাধারন সমন্বয় দেখানো হয়েছে। তাই চতুর্থ অঙ্কটি কাব‍্যগুনে উৎকৃষ্ট।

৭) মালবিকাগ্নিমিত্রম নাটক এর দুটি প্রধান বৈশিষ্ট্য উল্লেখ কর। মালবিকাগ্নিমিত্রম্ নাটকের স্বাতন্ত্র উল্লেখ কর।

উঃ- মালবিকাগ্নিমিত্রম নাটকের কাহিনী গতানুগতিক হলেও এর দুটি উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য হল- ক) এটি সংস্কৃত নাটকসাহিত‍্যের প্রথম ইতিহাসআশ্রয়ী কাহিনীমূলক নাটক। খ) এই নাটকের পরিণতিতে বিদূষকের তাৎপর্যপূর্ণ অর্থবহ ও প্রত্যক্ষ ভূমিকা।

৮) অভিজ্ঞানশকুন্তলম্ নাটকের কোন কোন অঙ্কটি শ্রেষ্ঠ? তার শ্রেষ্ঠত্বের কারণ সংক্ষেপে উল্লেখ কর।

উঃ-  স্বহৃদয় সমালোচক ও পাঠক সকলের মতে অভিজ্ঞান শকুন্তলম নাটকের চতুর্থ অংকটি শ্রেষ্ঠ।
         তপোবন  থেকে শকুন্তলার বিদায় গ্রহণের মর্মস্পর্শী চিত্র নাট‍্যকার চিত্রিত করেছেন – তা সর্বকালের ও সর্বদেশের। প্রকৃতি ও মানবের নিবিড় সম্পর্ক সর্বোত্তম কাব‍্যরসসিক্ত ভাষায় ও অনুভূতির অতলস্পর্শী গভীরতায়  প্রকাশিত হয়েছে। অনেকের মতে আবার নাটকের দিক থেকে পঞ্চম অংক শ্রেষ্ঠ।তাই  সমালোচকদের মুখে এরকম কথা শোনা যায় –
“শাকুন্তলে চতুর্থোঅঙ্কঃ সর্বোৎকৃষ্ট ইতি প্রথা।
ন সর্বসম্মতা তত্র পঞ্চমোঅস্তি ততোঅধিক।।”

৯) “পুরানমিত‍্যেব ন সাধু সর্বম্…..’ প্রভৃতি অংশটি কালিদাসের কোন নাট‍্যরচনায় পাওয়া যায়? এর তাৎপর্য কি?

উঃ- পুরানমিত‍্যেব….’ প্রভৃতি শ্লোকটি কালিদাসের মালবিকাগ্নিমিত্রম নাটকের প্রস্তাবনা অংশের সূত্রধরের উক্তি রূপে পঠিত হয়েছে।
সম্পূর্ণ শ্লোকটি এরকমঃ
“পুরানমিত‍্যেব ন সাধু সর্বং ন চাপি কাব‍্যং নবমিত‍্যবদ‍্যম্।
সন্তঃ পরীক্ষ‍্যান‍্যতরদভজন্তে মূঢ়ঃ পরপ্রত‍্যয়নেয়বুদ্ধিঃ।।”
যা কিছু পুরনো তা ভালো আর যা কিছু নতুন তা খারাপ একথা ঠিক নয় যারা পন্ডিত তার বিশেষ পরীক্ষা করে ভালো-মন্দ নির্ধারণ করেন যারা অর্থাৎ বিবেচনাহীন তারা অপরের দ্বারা চালিত হন তাৎপর্য এইযে গুনাগুন বিবেচনা করেই ভালো-মন্দ নির্ধারণ করা উচিত।

১০) কালিদাসের সর্বশ্রেষ্ঠ নাটক কোনটি কত অংকে রচিত এর উৎস কি?

উঃ- কালিদাসের সর্বশ্রেষ্ঠ নাটক হল অভিজ্ঞান শকুন্তলম। বিদ্বজনের কথায়- “কালিদাসস‍্য সর্বস্বমভিজ্ঞানশকুন্তলম্’।
অভিজ্ঞান শকুন্তলম নাটকটি সাতটি অংকে নিবদ্ধ। মহাভারতের আদি পর্বে বর্ণিত দুষ্মন্তশকুন্তলার কাহিনীই নাটকটির উৎস স্থল।

১১) অভিজ্ঞানশকুন্তলম নাটকে মর্মবাণী কি?

উঃ- দেহ নিষ্ঠ, কামজ পার্থিব প্রেম তপস্যা সংযম ও নিষ্ঠার দ্বারা দেহাতীত,কামসম্পর্ক শূন‍্য, অপার্থিব প্রেমে পরিণত হতে পারে মর্তের তরুণ সৌন্দর্য অবশেষে বিরহানলে পরিশুদ্ধ হয় প্রগাঢ় স্বর্গীয় মাধুরী ধারায় উত্তীর্ণ হয়। এই হল অভিজ্ঞান শকুন্তলম নাটকের মর্মবাণী।

১২) কালিদাসের তিনটি নাটকের নায়ক নায়িকা ও প্রতিনায়িকাদের মধ্যে কি ধরনের সাদৃশ্য লক্ষ্য করা যায়?

উঃ- কালিদাসের তিনটি নাটকের নায়কগণ প্রত্যেকেই বহুপত্নীক রাজা, নায়িকাগণ নায়ক অপেক্ষা বয়সে অনেক নবীন এবং এই বহুপত্নীক অসমবয়সী নৃপতিগন তাঁদের নবীন নায়িকাদের প্রতি আসক্ত। প্রতিনায়িকাগণ প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে প্রণয় কাহিনীর সংঘাতে জড়িত।

১৩) মালবিকাগ্নিমিত্রম্ নাটকের নায়ক নায়িকা ও প্রতি নায়িকাদের নাম উল্লেখ কর।

উঃ- মালবিকাগ্নিমিত্রম্ নাটকের নায়ক রাজা অগ্নিমিত্র, নায়িকা মালবিকা, প্রতিনায়িকা দুজন -রাজার দুই রানী- ধারিনী এবং ইরাবতী।

১৪) বিক্রমোর্বশীয়ম্ ও অভিজ্ঞান শকুন্তলম নাটকের প্রতি নায়িকাদের নাম উল্লেখ করো।

উঃ- বিক্রমোর্বশীয়ম নাটকের প্রতিনায়িকা হলেন রাজ্ঞী ও শীনরী এবং অভিজ্ঞানশকুন্তলম্ নাটকের প্রতিনায়িকারূপে বসুমতি ও হংসপ্রদিকার নাম করতে হয়।

১৫) কালিদাসের তিনটি নাটকের নায়কের পুত্রদের নাম উল্লেখ করো।

উঃ-  কালিদাসের তিনটি নাটকের নায়কই পুত্রবান্। মালবিকাগ্নিমিত্রম এর নায়ক অগ্নিমিত্রের পুত্রের নাম আয়ু এবং অভিজ্ঞান শকুন্তলম এর নায়ক দুষ্মন্তের পুত্রের নাম ভরত।
    তবে পার্থক্য এইযে শকুন্তলা ও বিক্রমোর্বশীয়ম্ নাটকের নায়ক পুত্রদ্বয় নায়িকা গর্ভজাত, আর মালবিকাগ্নিমিত্রম নাটকের নায়ক বসুমিত্র নায়িকার গর্ভজাত নয়, রাজ্ঞী ধারিনীর গর্ভজাত এবং নায়ক নায়িকার মধ্যে প্রণয় পূর্বেই ভূমিষ্ঠ।

১৬) কালিদাসের তিনটি নাটকের সমাপ্তির মধ্যে কি কোনো বিষয়গত ঐক্য পরিলক্ষিত হয়?

উঃ- কালিদাসের তিনটি নাটকের পরিসমাপ্তি ঘটেছে নায়কপুত্রদের উপস্থিতিতে।নাটকের পরিণতিতে তাদের প্রত্যক্ষ ভূমিকা বিদ্যমান। মালবিকাগ্নিমিত্রম নাটকে রাজপুত্র বসুমিত্রের যুদ্ধ জয়ের সংবাদের মাধ্যমে, বিক্রমোর্বশীয়ম নাটকের নায়কপুত্র আয়ুর উপস্থিতিতে এবং অভিজ্ঞান শকুন্তলম নাটকে নায়কপুত্র ভরতের সঙ্গে নায়ক দুষ্মন্তের পরিচয়ের মাধ্যমে নাটকের সমাপ্তি ঘটেছে।

১৭) বিক্রমোর্বশীয়ম্ নাটকের নায়িকা উর্বশী কোন নাটকে কার ভূমিকায় অভিনয় কালে কিরূপ প্রত‍্যবায় বা অপরাধ করেছিল?

উঃ- বিক্রমোর্বশীয়ম্ নাটকের নায়িকা উর্বশী “লক্ষী স্বয়ংবরম্” নাটকে লক্ষ্মীর ভূমিকায় অভিনয়কালে পুরুষোত্তম শব্দ উচ্চারণ করতে গিয়ে পুরুরবা নাম উচ্চারণ করে ফেলে এই অপরাধে সে নাট্যাচার্য ভরত কর্তৃক অভিশপ্তা হয়।

১৮) কালিদাসের শকুন্তলা নাটকের একসঙ্গে মর্ত্য ও স্বর্গ পাশাপাশি চিত্রিত- মহাকবি গ‍্যেটের এই উক্তির তাৎপর্য বিচার কর।

উঃ- শকুন্তলা নাটকের যৌবনের উদ্দামতা, উচ্ছাস ও ভোগের মধ্য থেকে জীবনের সূত্রপাত হয়েছে। কিন্তু সমগ্র সমাজ জীবনের ছন্দ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে কোনভাবেই কল্যাণময় পরিণতি লাভ করতে পারে না।

তাই বিরহের মধ্য দিয়ে নায়ক-নায়িকার প্রায়শ্চিত্ত ঘটিয়ে তারপর তাদের মিলন ঘটানো হয়েছে। ভোগপুর্ণ এই প্রথম জীবন হল মর্ত্য আর কামসম্পর্কশূন‍্য গভীর জীবনোপলব্ধিময়, প্রশান্ত মিলনপূর্ণ যে পরবর্তী মিলন তা স্বর্গদ‍্যোতক, স্বর্গের প্রতীকস্বরূপ।

সংস্কৃত সাহিত্যের ইতিহাসের অন্যান্য ছোট প্রশ্ন ও উত্তর গুলি নিচে দেখুন

আরো পড়ুন

VISIT OUR FACEBOOK PAGE

সংস্কৃত সাহিত্যের ইতিহাস আরো অন্যন্য গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট গুলি

আরো পড়ুন

MCQ TEST অভিজ্ঞানশকুন্তলম্

কালিদাস প্রশ্ন উত্তর – সংস্কৃত সাহিত্যের ইতিহাস

Leave a Comment