ভারতীয় দর্শন: পঞ্চীকরণ

ভারতীয় দর্শন হতে পঞ্চীকরণ ভূত আলোচনা করা হল ।

পঞ্চীকরণ ভারতীয় দর্শন

সূক্ষশরীরের উৎপত্তি বর্ণনা করে গ্রন্থাকার স্থূল ভূতের উৎপত্তি বর্ণনা করেছেন। স্থূল ভূতগুলি কিন্তু পঞ্চীকৃত। আকাশাদি পাঁচটি সূক্ষ্ম ভূতের প্রত্যেকটিকে সমান দু’ভাগে বিভক্ত করলে যে দশটি পাওয়া যায় তাদের প্রথম পাঁচটি ভাগের প্রত্যেকটি যে সমান চার ভাগে বিভক্ত করে ওই চার ভাগের নিজ নিজ অর্ধ্বভাগকে ছাড়িয়া  ভূতান্তরের সঙ্গে যে সংযোজন তাকেই  পঞ্চীকরণ বলে।  উক্ত হয়েছে-

” দ্বিধা বিধায় চ একৈকং চতুর্দ্ধা প্রথমং পুনঃ।
স্বস্বেতরদ্বিতীয়াংশৈঃ যোজন‍্য পঞ্চ পঞ্চতে।”

অর্থাৎ প্রত্যেক ভূতকে দুই ভাগে বিভক্ত করে, পুনরায় প্রথম ভাগ গুলিকে চার ভাগে বিভক্ত করে। নিজ নিজ থেকে ভিন্ন অর্থাৎ ভূতান্তরের, দ্বিতীয়ভাগের সহিত মিশ্রন করলে তাতে পাঁচ পাঁচ হয়। অর্থাৎ আকাশাদি প্রত‍্যকে পঞ্চাত্মক হয়। 
   
সূক্ষ্ম দেহসকল উৎপন্ন হলেও ভোগায়তন স্থূল শরীর ও ভোগ্য বস্তু সকল ব্যতীত ভোগ সম্ভব হয় না। সেই কারণে ঈশ্বরের ইচ্ছায় আকাশাদি পঞ্চতন্মাত্রের তমঃ  অংশের পঞ্চীকরণ দ্বারা স্থূলভূত সকল উৎপন্ন হল। পঞ্চভূতের এই বিশেষ মিশ্রণই হল পঞ্জিকরণ।

আচার্যগণের এই প্রক্রিয়াকে নিম্ন গাণিতিক প্রক্রিয়ায় দেখানো যায়।

পঞ্চীকরণভূত ভূতাংশ

পঞ্চীকরণভূত ভূতাংশআকাশবায়ুবায়ুজলপৃথিবী
আকাশ1/2 1/8 1/8 1/8 1/8
বায়ু1/8 1/21/8 1/8 1/8
বায়ু1/8 1/8 1/21/8 1/8
জল1/8 1/8 1/8 1/21/8
পৃথিবী1/8 1/8 1/8 1/8 1/2
পঞ্চীকরণভূত

এই পঞ্চীকরণের উদ্দেশ‍্যে অদ্বৈতী বলেন যে, সৃষ্টিকালে  আকাশাদি পঞ্চ সূক্ষভূত অবিদ‍্যা সহায় পরমাত্মা হতে আবির্ভূত হয়ে ব‍্যবহর্তা প্রাণীর ধর্মা ধর্মকে অপেক্ষা করে পরস্পর সংযুক্ত হলে পঞ্চাত্মক হয়। পঞ্চীকৃত ভূতই স্থূলভূত  এবং ব্যবহার্য।

ভারতীয় দর্শন হতে অন্য পোস্ট গুলি

Leave a Comment