শ্রীগঙ্গাস্তোত্রম্ কবি শঙ্করাচার্য – গঙ্গাদেবীর বিশেষণ -উচ্চ মাধ্যমিক সংস্কৃত

উচ্চ মাধ্যমিক ( HIGHER SECONDARY WBBCHSE ) দ্বাদশ শ্রেণীর সংস্কৃত ( CLASS TWELVE SANSKRIT ) বড় প্রশ্ন ( LONG NOTES ) সিলেবাসের পদ্যাংশ কবি শঙ্করাচার্য রচিত শ্রীগঙ্গাস্তোত্রম্ সাজেশন হিসাবে নিম্নের বড় প্রশ্ন টি ( SANSKRIT LONG NOTES ) তুলে ধরা হল । গঙ্গাদেবীর বিশেষণ কবি শঙ্করাচার্য গঙ্গাদেবীকে ( শ্রীগঙ্গাস্তোত্রম্ কবি শঙ্করাচার্য পদ্যাংশ ) যে সকল বিশেষণে ভুষিত করেছেন সেগুলি সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা কর ? উচ্চ মাধ্যমিক দ্বাদশ শ্রেণীর সংস্কৃত বড় প্রশ্ন গঙ্গাদেবীর বিশেষণ

কবি শঙ্করাচার্য গঙ্গাদেবীকে ( শ্রীগঙ্গাস্তোত্রম্ কবি শঙ্করাচার্য পদ্যাংশ ) যে সকল বিশেষণে ভুষিত করেছেন সেগুলি সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা কর ?


ভূমিকা :

অষ্টম শতাব্দীর প্রসিদ্ধ দার্শনিক শঙ্করাচার্য্য বিরচিত ‘ শ্রীগঙ্গাস্তোত্রম্ ’ নামক পদ্যাংশে গঙ্গাদেবী সম্পর্কে যে সমস্ত বিশেষণ গুলির উল্লেখ পাওয়া যায় সেগুলি সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা করা হল :


১। সুরেশ্বরি :

সুর শব্দের অর্থ দেবতা। সুতরাং দেবতাদের ঈশ্বরী অর্থাৎ সুরেশ্বরি হলেন গঙ্গাদেবী।


২। ভগবতি :

ভগ্ শব্দের অর্থ ঐশ্বর্য্য ইত্যাদি ছয়টি গুন- ঐশ্বর্য্য, বীরত্ব, জ্ঞান, বৈরাগ্য প্রভৃতি ছয়টি গুণের অধিকারিণী বলে গঙ্গাকে ‘ভগবতি ’ বলা হয়।


৩। শঙ্করমৌলিবিহারিণি :

শঙ্কর শব্দের দ্বারা মহাদেবকে বোঝায়। মহাদেব তাঁর মৌলি অর্থাৎ মস্তকে স্থিত জটাজালের মধ্যে গঙ্গাকে আবদ্ধ করে রাখেন এবং পরে গঙ্গাকে মুক্ত করে বিন্দুসরোবরে তাকে ত্যাগ করেন। তাই তিনি ‘শঙ্করমৌলিবিহারিণি’ নামে পরিচিত।


৪। ভাগীরথি :

পিতৃপুরুষদের পুনরুজ্জীবনের জন্য ভগীরথ গঙ্গাদেবীকে তপসা করে পৃথিবীতে নিয়ে আসেন তাই গঙ্গাকে ভাগীরথি বলা হয়।


৫। হরিপাদপদ্ম :

গঙ্গাদেবী শ্রীকৃষ্ণের চরণে আশ্রয় নিলে সমস্ত পৃথিবী জলশূণ্য হওয়ার উপক্রম দেখা যায়।

তখন দেবতাদের অনুরোধে কৃষণ গঙ্গাদেবীকে তার চরণের নখাগ্র থেকে বার করে দেন। তাই তার অপর নাম ‘বিষ্ণুপদী’।


৬। জাহ্নবী

গঙ্গার প্রবাহিত জলে জহ্নমুনির আশ্রম ও যজ্ঞ সামগ্রী ভেসে গেলে মুনি গঙ্গার সমস্ত জল পান করে ফেলেন। এই অনিষ্ট দেখে দেবতারা তপস্যা করে জহ্নমুনিকে সন্তুষ্ট করলে গঙ্গাকে নিজের ঊরু দিয়ে মুক্ত করে দেন। তাই গঙ্গাদেবী জাহ্নমুনির কন্যা অর্থাৎ জাহ্নবি নামে পরিচিত।


৭। ভীষ্মজননী :

রাজা শান্তনুর সাথে গঙ্গাদেবীর বিবাহ হয় এবং অষ্টম পুত্র ভীষ্মের জন্ম হয়। তাই গঙ্গা দেবীকে ভীষ্মজননী বলা হয়।

উপরি উক্ত বিশেষণগুলি ছাড়াও গঙ্গাদেবী সম্পর্কে আলোচ্য পাঠ্যাংশে ত্রিভুবনতারিণি, পতিতনিবারিণি, পারাবারবিহারিণি, নরকনিবারিণি, অলকানন্দে ইত্যাদি বিশেষণ রয়েছে।

উচ্চ মাধ্যমিক দ্বাদশ শ্রেণী সংস্কৃত গঙ্গাস্তোত্রম্

শ্রীগঙ্গাস্তোত্রম্

গুরুত্ত্বপূর্ণ প্রশ্ন গুলি

গঙ্গাস্তোত্রম্ ভাবসম্প্রসারণ – মম মতিরাস্তাং তবপদকমলেভাবসম্প্রসারণ

SANSKRIT SUGGESTION 2021 (Modified Syllabus )

MODERNSANSKRIT এর পক্ষ থেকে সকলকে অগ্রিম ধন্যবাদ ।

উচ্চ মাধ্যমিক সংস্কৃত – একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ টপিক উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা (Higher Secondary / HS Exam / WBCHSE – West Bengal Council of Higher Secondary Sanskrit / HS Class 12th / Class XII / Uccha Madhyamik Pariksha) এবং বিভিন্ন চাকরির ( WBSSC , SLST WBCSSC , NET , TET SET ) পরীক্ষার প্রস্তুতিমূলক LONG SHORT MCQ NOTES তৈরি করা হয়েছে ।

      www.modernsanskrit.com/ এর পক্ষ থেকে উচ্চমাধ্যমিক সংস্কৃত পরীক্ষা (দ্বাদশ শ্রেণী) প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নোত্তর এবং সাজেশন (Higher Secondary Sanskrit Suggestion / WBCHSE – West Bengal Council of Higher Secondary Education / HS Class 12th Sanskrit / Class XII Sanskrit / Uccha Madhyamik Pariksha / HS Exam Guide / MCQ , Short , Descriptive  Type Question and Answer / FREE PDF Download)   উচ্চ মাধ্যমিক সংস্কৃত পরীক্ষা ( দ্বাদশ শ্রেণী ) প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নোত্তর এবং সাজেশন ( Higher Secondary Sanskrit Suggestion / WBCHSE – West Bengal Council of Higher Secondary Education / HS Class 12th Sanskrit / Class XII Sanskrit / Uccha Madhyamik Pariksha / HS Exam Guide / MCQ , Short , Descriptive  Type Question and Answer / FREE PDF Download) দেওয়া হয়েছে ।

গঙ্গাদেবীর বিশেষণ কবি শঙ্করাচার্য গঙ্গাদেবীকে ( শ্রীগঙ্গাস্তোত্রম্ পদ্যাংশ ) যে সকল বিশেষণে ভুষিত করেছেন সেগুলি সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা কর ? উচ্চ মাধ্যমিক দ্বাদশ শ্রেণীর সংস্কৃত গঙ্গাদেবীর বিশেষণ

2 thoughts on “শ্রীগঙ্গাস্তোত্রম্ কবি শঙ্করাচার্য – গঙ্গাদেবীর বিশেষণ -উচ্চ মাধ্যমিক সংস্কৃত”

  1. বানানের প্রতি যত্নবান হতে হবে। কারণ উত্তরে কয়েকটি বানান অশুদ্ধ আছে।

    Reply

Leave a Comment