ভারতীয় দর্শন: সপ্তভঙ্গীনয়

ভারতীয় দর্শন হতে সপ্তভঙ্গীনয় আম্পারকে আলোচনা ।

ভারতীয় দর্শন সপ্তভঙ্গীনয়

অবধারণ সম্পর্কে জৈন মতবাদ ভারতীয় দর্শনে স‍্যাদবাদ নামে পরিচিত। আবার জৈন স‍্যাদবাদ জৈন অনেকান্তবাদ থেকেই অনিবার্যভাবে নিঃসৃত হয়েছে। জৈনমতে, অনন্তধর্ম বিশিষ্ট বস্তুর নির্দিষ্ট কোনো বিশেষ ধর্মের জ্ঞানকে নয় বলে। উক্ত জ্ঞান প্রকাশের মাধ্যম বচনটিও ‘নয়’। দৈনন্দিন জীবনে ‘নয়’ গুলো বিশেষ দৃষ্টিকোণ থেকেই করা হয়। প্রত্যেকটি ‘নয়’ বচনের সত্যতা সীমায়িত। বচন বা নয় এর আপেক্ষিক সত‍্যতার জন্য জৈনদের জ্ঞান সম্পৃক্ত মতবাদ স‍্যাদবাদ নামে পরিচিত।স‍্যাদ শব্দটির অর্থ কথঞ্চিত বা কোনভাবে।  স‍্যাদবাদ কথঞ্চিত এই বিশেষ প্রয়োগের দ্বারা একান্ত বা নিশ্চয়কে পরিহার বলে।

          স‍্যাদবাদের তাৎপর্য বোঝানোর জন‍্য জৈনরা একটি দৃষ্টান্ত ব‍্যবহার করেছেন। তারা বলেন কতগুলি অন্ধলোক একটি  হল একটি হাতির প্রকৃত রূপ নিয়ে তর্ক বিতর্কে প্রবৃত্ত হতে পারে না। যে লোকটি হাতির পা স্পর্শ করবে সে বলবে হাতি স্তম্ভের মতো। যে লেজ স্পর্শ  করবে সে বলবে হাতি দড়ির মতো। এইভাবে যে হাতির অন্য অঙ্গ স্পর্শ করবে সে হয়তো হাতির অন্য কোন আকৃতির ব্যাখ্যা দেবে। জৈনরা বলেন কোনো ব্যাখ্যায় সম্পূর্ণ মিথ্যা নয়, আবার কোন ব্যাখ্যা সম্পূর্ণ সত্যও নয়।

          জৈনগন কোন বস্তুর স্বরূপ জানার জন্য স্বপ্নভঙ্গী নয়ের প্রয়োগ করেন। জৈনরা বলেন যেহেতু কোন বস্তুকে একান্ত ভাবে অস্তিত্বশীল বা অস্তিত্বশীল নয় বলা যায় না,  সেহেতু সপ্তভঙ্গিনয় নামক ন‍্যায়ের অবতারণা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার দাবি রাখে। মাধবাচার্যের মতে, সপ্তভঙ্গিনয় হেয় ও আধেয় ভেদ বিকল্পের নির্দেশ দেন।

সপ্তভঙ্গী নয় গুলো যথাক্রমে –

  • i) স‍্যাৎ অস্তি – কোন প্রকারে আছে।
  • ii) স‍্যাৎ নাস্তি – কোনভাবে নেই।
  • iii) স‍্যাৎ অস্তি চ নাস্তি চ – কোন ভাবে আছে কোন ভাবে নেই।
  • iv) স‍্যাৎ অব‍্যক্তম্ – কোন ভাবে অবর্ণনীয়।
  • v) স‍্যাৎ অস্তি চ অব‍্যক্তব‍্যম্ – কোন ভাবে আছে তা অবর্ণনীয়।
  • vi) স‍্যাৎ নাস্তি চ অব‍্যক্তব‍্যম্ – কোন ভাবে নেই তা অবর্ণনীয়।
  • vii) স‍্যাৎ অস্তি চ নাস্তি চ অব‍্যক্তব‍্যম্ – কোন  ভাবে আছে, কোনো ভাবে নেই তা অবর্ণনীয়।

ভারতীয় দর্শন হতে অন্য পোস্ট গুলি

Leave a Comment