উপেন্দ্রবজ্রা ছন্দ

সংস্কৃত ছন্দের একাদশ অক্ষরা ছন্দ হল উপেন্দ্রবজ্রা ছন্দ । এই উপেন্দ্রবজ্রা ছন্দের লক্ষণ উদাহরণ সহযোগে ব্যাখ্যা করা হল ।

উপেন্দ্রবজ্রা ছন্দ

যে সমবৃত্ত ছন্দের প্রতিটি চরণে ১১টি করে অক্ষর থাকে এবং প্রতি চরণের অক্ষরসজ্জা জ, ত, জ,গ,গ -গন হয় এবং প্রতিটি চরনের শেষে যতি বসে,  তাকে উপেন্দ্রবজ্রা ছন্দ বলে।

উপেন্দ্রবজ্রা ছন্দের প্রতীক চিহ্ন:-

জ, ত, জ,গ,গ

উপেন্দ্রবজ্রা ছন্দের লক্ষণ

  • এই উপেন্দ্রবজ্রা ছন্দের লক্ষণ প্রসঙ্গে আচার্য গঙ্গাদাস বলেছেন-

‘উপেন্দ্রবজ্রা প্রথমে লঘৌ সা।’

উপেন্দ্রবজ্রা ছন্দের উদাহরণ:-

তপস্বি সংসর্গ বিনীত সত্ত্বে।
তপোবনে বীতভয়া বসাস্মিন্।
ইত‍্যোভবিষ‍্যত‍্য নঘপ্রসূতেঃ
অপত‍্য সংস্কার ময়ো বিধিস্তে।।

উপেন্দ্রবজ্রা ছন্দের উদাহরণ বিশ্লেষণ

তপস্বি / সংসর্গ / বিনীত / স / ত্ত্বে।
জ ত জ গ গ
তপোব / নেবীত / ভয়াব/ সা / স্মিন্।
জ ত জ গ গ
ইত‍্যোভ / বিষ‍্যত‍্য / নঘপ্র / সূ / তেঃ
জ ত জ গ গ
অপত‍্য / সংস্কার / ময়োবি / ধি / স্তে
জ ত জ গ গ ।।

এই শ্লোকটির প্রতিটি চরণে ১১ টি অক্ষর আছে এবং প্রতিটি চরনের অক্ষর সজ্জা যথাক্রমে জ,ত,জ,গ,গ – গণ হয়েছে এবং প্রতিটি চরনের শেষে যতি বসেছে। সুতরাং আচার্য গঙ্গাদাসের লক্ষণ অনুযায়ী এই শ্লোকটি উপেন্দ্রবজ্রা নামক সমবৃত্ত ছন্দের প্রকৃষ্ট উদাহরণ।

ইন্দ্রবজ্রা ও উপেন্দ্রবজ্রা ছন্দের পার্থক‍্য

ইন্দ্রবজ্রা :-
i) ইন্দ্রবজ্রা ছন্দের লক্ষণ হল – ‘স‍্যাদিন্দ্রবজ্রা যদি তৌ জগৌগঃ।’
ii) ইন্দ্রবজ্রা ছন্দে ত,ত,জ,গ,গ -গণ হয়।
iii) এই ছন্দে আদি অক্ষর গুরু হয়।
iv) অর্থোহি কন‍্যাপ রকীয় এ ব।

উপেন্দ্রবজ্রা:-
i)উপেন্দ্রবজ্রা ছন্দের লক্ষণ হল- ‘উপেন্দ্রবজ্রা প্রথমে লঘৌ সা।’
ii) উপেন্দ্রবজ্রা ছন্দে জ,ত,জ,গ,গ -গণ হয়।
iii) এই ছন্দে আদি অক্ষর লঘু হয়।
iv) তপস্বি সংসর্গ বিনীত স ত্ত্বে।

Leave a Comment