ইন্দ্রবজ্রা ছন্দ

সংস্কৃত ছন্দের একাদশ অক্ষরা ছন্দ হল ইন্দ্রবজ্রা ছন্দ । এই ইন্দ্রবজ্রা ছন্দের লক্ষণ উদাহরণ সহযোগে ব্যাখ্যা করা হল ।

ইন্দ্রবজ্রা ছন্দ

ইন্দ্রবজ্রা ছন্দ:- যে সমবৃত্তছন্দে প্রতিটি চরনে ১১ টি অক্ষর থাকে এবং অক্ষরসজ্জা যথাক্রমে ত,ত,জ,গ,গ- গণ হয়। প্রতি চরণের শেষে যতি বসে, তাকে ইন্দ্রবজ্রা ছন্দ বলে।

ইন্দ্রবজ্রা ছন্দের প্রতীক চিহ্ন

ত, ত, জ, গ, গ

ইন্দ্রবজ্রা ছন্দের লক্ষণ

  • এই ইন্দ্রবজ্রা ছন্দের লক্ষণ প্রসঙ্গে আচার্য গঙ্গাদাস বলেছেন-

“স‍্যাদিন্দ্রবজ্রা যদি ত‍ৌ জগৌগঃ।”

ইন্দ্রবজ্রা ছন্দের উদাহরণ

“অর্থোহি কন‍্যাপরকীয় এব।
তামদ‍্য সংপ্রেষ‍্য পরিগ্রহীতু
জাতোমমায়ং বিশদঃ প্রকামং
প্রত‍্যর্পিতন‍্যাস ইবান্তরাত্মা।।”

এই শ্লোকটির প্রতিটি চরণে ১১ টি অক্ষর আছে এবং প্রতিটি চরণের অক্ষর সজ্জা যথাক্রমে ত, ত, জ, গ, গ- গণ হয়েছে। শ্লোকের প্রতি চরণের শেষে যতি বসেছে। সুতরাং আচার্য গঙ্গাদাসের লক্ষণ অনুযায়ী এই শ্লোকটি ইন্দ্রবজ্রা নামক সমবৃত্ত ছন্দের প্রকৃষ্ট উদাহরণ।

ইন্দ্রবজ্রা ছন্দের উদাহরণ বিশ্লেষণ

i) অর্থোহি /কন‍্যাপ /রকীয় /এ /ব।
ত ত জ গ গ
তামদ‍্যা /সংপ্রেষ‍্য /পরিগ্র /হী /তু
ত ত জ গ গ
জাতোম /মায়াংবি /শদঃপ্র /কা /মং
ত ত জ গ গ
প্রত‍্যর্পি /তন‍্যাস/ ইবান্ত /রা /ত্মা
ত ত জ গ গ

ii) ভানুঃস /কৃদযুক্ত/ তুরঙ্গ/ এ/ ব
ত ত জ গ গ

এই চরণটিকে লঘু – গুরু ক্রমে চিহ্নিত ক‍রে দেখা গেল চরণটিতে ত,ত,জ,গ,গ- গন আছে এবং অক্ষর সংখ্যা ১১ টি। তাই এটি ইন্দ্রবজ্রা ছন্দের প্রকৃষ্ট উদাহরণ।

ইন্দ্রবজ্রা ও উপেন্দ্রবজ্রা ছন্দের পার্থক‍্য লিখ?

ইন্দ্রবজ্রা :-
i) ইন্দ্রবজ্রা ছন্দের লক্ষণ হল – ‘স‍্যাদিন্দ্রবজ্রা যদি তৌ জগৌগঃ।’
ii) ইন্দ্রবজ্রা ছন্দে ত,ত,জ,গ,গ -গণ হয়।
iii) এই ছন্দে আদি অক্ষর গুরু হয়।
iv) অর্থোহি কন‍্যাপ রকীয় এ ব।

উপেন্দ্রবজ্রা:-
i)উপেন্দ্রবজ্রা ছন্দের লক্ষণ হল- ‘উপেন্দ্রবজ্রা প্রথমে লঘৌ সা।’
ii) উপেন্দ্রবজ্রা ছন্দে জ,ত,জ,গ,গ -গণ হয়।
iii) এই ছন্দে আদি অক্ষর লঘু হয়।
iv) তপস্বি সংসর্গ বিনীত স ত্ত্বে।

Leave a Comment