ভট্টিকাব‍্য: সংস্কৃত ব্যাখ্যা – প্রভাতবাতাহতিকম্পিতাকৃতিঃ

ভট্টিকাব‍্য হতে সংস্কৃত ব্যাখ্যা প্রভাতবাতাহতিকম্পিতাকৃতিঃ কুমুদ্বতীরেণুপিশঙ্গবিগ্রহম্। নিরাসভৃঙ্গং কুপিতেব পদ্মিনী ন মালিনী সংসহতেঅন‍্য সঙ্গমম্।।”

ভট্টিকাব‍্য হতে সংস্কৃত ব্যাখ্যা প্রভাতবাতাহতিকম্পিতাকৃতিঃ

“প্রভাতবাতাহতিকম্পিতাকৃতিঃ
কুমুদ্বতীরেণুপিশঙ্গবিগ্রহম্।
নিরাসভৃঙ্গং কুপিতেব পদ্মিনী
 ন মালিনী সংসহতেঅন‍্য সঙ্গমম্।।”

বঙ্গানুবাদ:-

প্রভাত বায়ুর দ্বারা আন্দোলিতা কমলিনী যেন ক্রুদ্ধা হয়েই কমুদিনির পরাগে পিঙ্গল দেহে ভ্রমরকে প্রত্যাখ্যান করছে। কারণ অভিমানিনী রমনী প্রতি অন্য স্ত্রী সঙ্গম সহ্য করতে পারে না।

উৎস

মহাকবি ভট্টি বিরচিতস‍্য ভট্টিকাব‍্যস‍্য দ্বিতীয় সর্গাৎ সমুপলভ‍্যতে অয়ং শ্লোকঃ।

প্রসঙ্গ

অত্র যজ্ঞবিঘ্নকারিণাং মারীচ তাড়কাদি রাক্ষসানাং বিনাশার্থং মহর্ষি বিশ্বামিত্রেন সহ লক্ষণো রামোঅযোধ‍্যাতঃ নির্গত‍্য সমন্তাৎ প্রকাশমানাং মনোহারিণী শরচ্ছোভাং যথা দদর্শ তদ্বর্ণয়ন্নাহ কবি – ” প্রভাতবাতাহতিকম্পিতাকৃতিঃ….’।

সংস্কৃত ব্যাখ্যা

শরৎকালস‍্য প্রভাতসময়ে জলাশয়েষু কমলানাং বিকাশো ভবতি। পবনেন আন্দোলিতা দৃষ্ট্বা কমলিনী। অতএব প্রকম্পিতং শরীরং নিষেধং সূচয়তি ইব। মধুপানার্থং সমাগতং মধুকরং দূরতঃ বিলোক‍্য মধুকরনেব শরীরে কমুদিনীনাং পরাগৈঃ শরীরং লাঞ্ছিতং দৃষ্ট্বা কমলিনী কোপপরায়ণা ভবতি। অতএব সা কমলিনী মধুকরং শরীর কম্পনেন নিরস্তং করোতি। কমুদিনীং হি রাত্রো চন্দ্রেন সহ মিলিতা ভবতি। সা চন্দ্রস‍্য নায়িকা ইতি প্রায়েন কবিভিঃ কথিতা ন হি কাচিৎ অভিমানিনী অন‍্যস‍্য স্ত্রীয়া সহ নায়কস‍্য ইব নায়কং প্রতিষেধং করোতি ইতি। অত্র কবিণাং উৎপ্রেক্ষিতম্ ইতি শ্লোকার্থ।

অলংকার

অস্মিন্ শ্লোকে বংশস্থবিলম্ বৃত্তম্ অর্থান্তরান‍্যাস ইতি অলংকারশ্চ বর্ততে।

Comments Box