একাদশ শ্রেণীর পাঠ্যাংশ ব্রাহ্মণচৌরপিশাচকথা অনুসারে ভাবসম্প্রসারণ

একাদশ শ্রেণীর পাঠ্যাংশ ব্রাহ্মণচৌরপিশাচকথা অনুসারে ”শত্রবোহপি হিতায়ৈব বিবদন্ড পরস্পরম্ ”-শ্লোকটির ভাবসম্প্রসারণ

ব্রাহ্মণচৌরপিশাচকথা – ভাবসম্প্রসারণ

“শত্রূবোঅপি হিতায়ৈব বিবদন্তঃ পরস্পরম্”।

উত্তরঃ- মানবসমাজে দুধরনের মানুষ বাস করে। যথা – শত্রু,মিত্র। কিন্তু কেউ জন্মগত ভাবে শত্রু বা মিত্র নয়। সমাজে বিভিন্ন পরিস্থিতির ফলে কেউ শত্রু এবং কেউ মিত্র।

          মিত্ররা সবসময় বিপদের সময় সাহায‍্য করে। আর শত্রুরা সবসময় উপকারের বদলে অপকারের করে থাকে। শত্রুরা সবসময় শত্রুর অমঙ্গল সাধন করে। শত্রুদের স্বভাব পরিবর্তন করা খুবই কঠিন। কিন্তু শত্রুদের হাত থেকে রক্ষা পেতে হলে শত্রুর সঙ্গে শত্রুর বিবাদ সৃষ্টি করতে হবে। অর্থাৎ কাটা দিয়ে কাটা তোলা’। একটি শত্রুকে বিনাশ করতে হলে অপর এক শত্রুর দ্বারাই সম্ভব।
       যদি কোনো কারনেই শত্রুরা নিজেদের মধ‍্যে বিবাদে জড়িয়ে পড়ে তাহলে একে অপরকে  বিবাদে ফেলার জন‍্য সমাজে মঙ্গল সাধন করে থাকে।
       আমাদের পাঠ‍্যাংশে চোর ও রাক্ষস নিজেদের পরস্পর স্বার্থরক্ষার জন‍্য বিবাদ এমন পর্যায় পৌঁছায় ফল হিসাবে ব্রাহ্মণের জীবন এবং গোরুদুটি রক্ষা পেয়েছিল।

Leave a Comment