দিঙ্নাগ – সংস্কৃত সাহিত্যের ইতিহাস

দিঙ্নাগ (খৃঃ একাদশ শতক) শর্ট প্রশ্ন ও উত্তর- সংস্কৃত সাহিত্যের ইতিহাস হতে আলোচনা করা হল ।

দিঙ্নাগ – সংস্কৃত সাহিত্যের ইতিহাস

দিঙ্নাগ ‘কুন্দমালা’ নামে একটি নাটক লিখেছিলেন। কবির অন্যনাম ধীরনাগ। রামায়ণের উত্তরকাণ্ডের কাহিনি এর অবলম্বন। সীতার অগ্নিপরীক্ষা এবং লবকুশের হাতে রাজ্যভার অর্পণ পর্যন্ত কাহিনি এতে বিবৃত আছে। ছয় অঙ্কে বিন্যস্ত এই দৃশ্যকাব্যটি নাটক শ্রেণিভুক্ত।

কালিদাস মেঘদূতে একজন দিঙ্নাগের কথা বলেছেন। ভবভূতির উত্তররামচরিতে এ নাটকের কচক্ষুর আড়া৷ প্রভাব আছে বলে কেউ কেউ মনে করেন। ইনিই যে বিখ্যাত বৌদ্ধপণ্ডিত দিাগ তার কোনো নিশ্চিত প্রমাণ নেই।

তবে কুন্দমালার রচনাশৈলী ও ভাষা দেখে মনে হয় ইনি সম্ভবত প্রাচীন নাটা খ্রিস্টিয় দ্বিতীয়-তৃতীয় শতকের কবি। দিাগের কবিত্বশক্তি ততটা প্রখর না-হলেও তাঁর ক পরিমা রুচি প্রশংসনীয়।

দিঙ্নাগ শর্ট প্রশ্ন ও উত্তর

১) বৌদ্ধ আচার্য দিঙনাগ ও নাট্যকার দিঙ্নাগ কি একই ব্যক্তি? দিঙ্নাগ আর কি কি নামে পরিচিত?


উঃ- নাট্যকার ও বৌদ্ধ দার্শনিক দিঙনাগ যে এক ব্যক্তি নন একথা পণ্ডিতগণ সকলে এক বাক্যে স্বীকার করেন
নাট্যকার দি ঙ্নাগ কোথাও কোথাও (কোন কোন পুঁথিতে) ধীরনাগ এবং বীরনাগ নামেও উল্লেখিত হয়েছে

২) দিঙনাগ রচিত নাটকের নাম কি এর উৎস কি এতে কয়টি অংক আছে?


উঃ- দিঙনাগ রচিত নাটকের নাম কুন্দমালা রামায়ণ থেকে এর কাহিনী গৃহীত হয়েছে এতে ছয়টি অংক আছে

৩) নাটকের কুন্দমালা এরকম নামকরণের কারণ কি?


উঃ- ভবভূতির উত্তরামচরিতম্ এর কাহিনীই প্রধানভাবে এই নাটকে অনুষ্ঠিত হয়েছে নদীর জলে ভাসমান কুন্দমালা দর্শনে বিসর্জিতা সীতাকে পুনরাবিস্তার এবং পুনর্মিলনে নাট্য কাহিনীর পরিসমাপ্তি ঘটার কারণে কুন্দমালা নামকরণটি সার্থক

সংস্কৃত সাহিত্যের ইতিহাসের অন্যান্য ছোট প্রশ্ন ও উত্তর গুলি নিচে দেখুন

আরো পড়ুন

ব্যসন কি? মনুসংহিতা অনুসারে আলোচনা কর

মনুসংহিতা- রাজার উৎপত্তির ঐশ্বরিক মতবাদ

VISIT OUR FACEBOOK PAGE

Leave a Comment