নিদর্শনা অলংকার সম্পর্কে আলোচনা কর

         সাহিত্যদর্পণ গ্রন্থের দশম পরিচ্ছেদ অনুসারে নিদর্শনা অলংকার সম্পর্কে সহজভাবে আলোচনা করা হল । নিদর্শনা অলংকারের লক্ষণ তাৎপর্য উদাহরণ সহ বাখ্যা করা হল। 

নিদর্শনা অলংকার

নিদর্শনা অলংকারের লক্ষণ

আচার্য বিশ্বনাথ কবিরাজ তার সাহিত্যদর্পণ গ্রন্থের দশম পরিচ্ছেদে” নিদর্শনা অলংকার এর লক্ষণ প্রসঙ্গে বলেছেন-

“सम्भबन् बस्तुसम्बन्धोअसम्भबन् बापि कुत्रचिৎयत्र बिम्बानुबिम्बत्बं बोधয়ेৎ सा निदर्शना।”

অর্থ:-

দুটি বস্তুর মধ্যে পরস্পর অন্বয় কোথাও বাধিত থেকে বা কোথাও অবাধিত থেকে যখন “বিম্বপ্রতিবিম্ব” ভাব বা “উপমেয়-উপমান” ভাব প্রকাশ করে,তার ফলে যে অলংকার হয়, তার নাম নিদর্শনা অলংকার।

নিদর্শনা অলংকারের বাখ্যা

নি-√দৃশ উত্তর “যু” প্রত্যয় (স্ত্রীলিঙ্গ) যোগে “নিদর্শনা” পদটি গঠিত। এর অর্থ নিশ্চিতভাবে উপমান ও উপমেয়ের ভেদ করায় যে সেই নিদর্শনা। আলোচ্য লক্ষণে “বস্তু” শব্দের দ্বারা প্রকৃত এবং অপ্রকৃত উভয়প্রকার বস্তুকেই বোঝানো হয়েছে।

প্রকৃত বিষয়ের সঙ্গে অপ্রকৃত বিষয়ের সম্বন্ধ কোনো ক্ষেত্রে বাধা পায়না, আবার কোথাও বাধাপ্রাপ্ত হয়।

সুতরাং, পদার্থ সমূহের পরস্পর সম্বন্ধ বা অন্বয় যদি যথার্থভাবে উৎপন্ন হয় অথবা অনোচিত্যবশত বাধিত হয়ে উৎপন্ন না হয় এবং বিম্বপ্রতিবিম্ব ভাব প্রকাশ করে, তাহলে নিদর্শনা অলংকার হয়।

উদাহরণ:- 


“इदं किलाब्याज मनोहरं बपुस्तप : क्लमं साधয়ितुं य इच्छति।
ध्रुबं स नीलोৎपल पत्रधारয়ा शमीलतां छेत्तुमृषिर्ब्यबस्यति।।”

অর্থ:-

যে ঋষি স্বভাবসুন্দর এই দেহকে তপস্যার উপযোগি করে কষ্টসাধন করাতে চান, তিনি নিশ্চিতভাবে নীলপদ্মের পাপড়ির ধার দিয়ে শমীবৃক্ষকে ছেদন করতে ইচ্ছা প্রকাশ করেন।

নিদর্শনা অলংকারের তাৎপর্য

শ্লোকটির মধ্যে দুটি বাক্য আছে।

  • প্রথমটি হল- শকুন্তলার সুন্দর শরীরকে তপস্যার উপযোগী করে তোলা,
  • দ্বিতীয়টি হল- নীলপদ্মের পাপড়ি দ্বারা শমীবৃক্ষকে ছেদন করা। এখানে “য” ও “স” শব্দদ্বয়ের দ্বারা বস্তুদুটির মধ্যে অভেদ সম্বন্ধ হয়েছে।

কিন্তু শব্দদুটির দ্বারা একটি ব্যাক্তিকে সূচিত করেছে। অর্থাৎ, যে ঋষি শকুন্তলাকে তপস্যায় নিযুক্ত করেন, তিনি নিশ্চই নীলপদ্মের পাপড়ি দ্বারা শমীবৃক্ষ ছেদনে আগ্রহী নন। ইহা ইচ্ছা সদৃশ।

তাই বাক্যদ্বয়ের মধ্যে বিম্বপ্রতিবিম্ব ভাব প্রকাশ পেয়েছে। সুতরাং , উক্ত শ্লোকটি নিদর্শনা অলংকারের প্রকৃষ্ট উদাহরণ হয়েছে।

কতকগুলি অলংকার সম্পর্কে আলোচনা করা হল –


*

Leave a Comment