কর্মযোগ বাখ্যা -উচ্চ মাধ্যমিক দ্বাদশ শ্রেণীর সংস্কৃত

যদ্ যদাচরতি শ্রেষ্ঠস্তত্তদেবেতরাে জনঃ দ্বাদশ শ্রেণীর সংস্কৃত কর্মযোগ গীতা বাখ্যা ( sanskrit long notes )। সংস্কৃত প্রশ্ন উচ্চ মাধ্যমিক দ্বাদশ শ্রেণীর সংস্কৃত প্রশ্ন ( sanskrit long notes ) – যদ্ যদাচরতি শ্রেষ্ঠস্তত্তদেবেতরাে জনঃ। – তাৎপর্য বাখ্যা কর। 

দ্বাদশ শ্রেণীর কর্মযোগ বাখ্যা

যদ্ যদাচরতি শ্রেষ্ঠস্তত্তদেবেতরাে জনঃ

যদ্ যদাচরতি শ্রেষ্ঠস্তত্তদেবেতরাে জনঃ ( গীতা মাহাত্ম্য) গীতা তৃতীয় অধ্যায়

ভুমিকা

গীতাতে শ্রীকৃষ্ণ অর্জুনকে কর্মযােগের ব্যাখ্যা দেন। তিনি বলেছেন বিপাদগামী প্রবৃত্তিকে বাধা দেওয়া বা সমাজের মঙ্গলের জন্য কর্ম করে যাওয়া উচিত।

এই প্রসঙ্গে শ্রেষ্ঠ ব্যক্তির কর্মের প্রয়ােজনীয়তা বােঝাতে উক্ত বাক্যটি করেছেন ।

বাক্যটির অর্থ হল

শ্রেষ্ঠ ব্যাক্তি যা যা আচরণ করেন সাধারন মানুষ তাই অনুসরণ করে।

দ্বাদশ শ্রেণীর কর্মযোগ গীতা ব্যাখ্যা দ্বাদশ শ্রেণীর কর্মযোগ

তাৎপর্য্য

শ্রেষ্ঠ ব্যক্তি হলেন তিনি যিনি জগৎ সংসারের মুক্তির জন্য বা উন্নতির জন্য কর্ম করেন। তিনির নিজের কর্ম করেন না। সমাজকে সৎ পথে প্রবৃত্ত রাখবার জন্য কর্ম করবেন । লােকে এই শ্রেষ্ঠ ব্যক্তির আচরণ কে অনুকরণ করবে।

সুতরাং তিনি এমন কর্ম করবেন যেগুলি সমাজে অনিষ্ট সাধন করবে না। শুধুমাত্র আচরণ অনুসরণ করানাে শ্রেষ্ঠব্যক্তির কাজ নয় , কেননা তিনি যা প্রমান বলে স্বীকার করবেন সাধারণ লােক সেটিকে অনুসরণ করবে।

সুতরাং শ্রেষ্ঠ ব্যাক্তি কামনা বাসনা পরিত্যাগ করে অবস্থানুযায়ী কর্ম সাধনে ব্রতী হবেন। আর তখনি মানব জাতির উন্নতি সাধন ঘটবে। মূল্যায়ন শ্রেষ্ঠব্যক্তি হলেন পথ প্রদর্শক। তিনি নিজের আদর্শকে সমাজের সামনে তুলে ধরবেন ।তখন সমাজ আদর্শকে গ্রহন করবে। কেননা শাস্ত্রে বলা আছে –

মহাজন যেন গতঃ স পন্থা।

আরো অন্যান্য প্রশ্ন ও উত্তর গুলি —

উচ্চ মাধ্যমিক দ্বাদশ শ্রেণী সংস্কৃত কর্মযোগ

কর্মযোগ বাখ্যা

কর্মযোগ ভাবসম্প্রসারণ

Leave a Comment