বনগতা গুহা: গুহাভ্যন্তরে প্রবেশ করে অলিপর্বা কী কী দেখেছিল

উচ্চ মাধ্যমিক দ্বাদশ শ্রেণীর সংস্কৃত বনগতা গুহা হতে প্রশ্ন গুহাভ্যন্তরে প্রবেশ করে অলিপর্বা কী কী দেখেছিল এবং তার অনুভূতি ব্যাখ্যা করো

গৃহাভ্যন্তরং প্রবিশ্য অলিপর্বা সর্বতঃ রাশিকৃতানি ভক্ষ্যাণি দশর্শ।” – গুহাভ্যন্তরে প্রবেশ করে অলিপর্বা কী কী দেখেছিল এবং তার অনুভূতি ব্যাখ্যা করো।

উত্তর : শ্রীগোবিন্দকৃষ্ণ মোদক প্রণীত “বনগতা গুহা” পাঠ্যাংশে গল্পের নায়ক হল অলিপর্বা। এই সৎ পরিশ্রমীদ্বারা অপকৃত ধনরত্ন গুহার মধ্যে দেখে তার মানসিক বিপর্যয় ঘটে। এখানে তা বর্ণনা করা হয়েছে

গুহাভান্তরের বর্ণনা

কৌতূহলী অলিপূর্বা দস্যু সর্দারের উচ্চারিত মন্ত্র প্রয়োগে ব্যস্ত হয়ে ওঠে। সে সেই মন্ত্র পাঠ করা মাত্রই গুহার দরজা খুলে যায়। তার ভিতরে প্রবেশ করে বিস্ময়ের সঙ্গে অলিপর্বা দেখল সামনে ঘরে সজ্জিত নানারূপ জিনিস ।

গুহাভ্যন্তরে প্রবেশ করে অলিপর্বা কী কী দেখেছিল

গৃহাভ্যন্তরং প্রবিশ্য অলিপর্বা সর্বতঃ রাশিকৃতানি ভক্ষ্যাণি দশর্শ।” ঘরে সজ্জিত নানারূপ খাদ্য দ্রব্য । বহুমূল্য চীন দেশের রেশমী বস্ত্র , রাশি রাশি সোনা রূপার শলাকা দেখতে পেল।

আলিপর্বর অনুভূতি বর্ণনা

এত ধনসম্পদ থেকে অলিপর্বা বিহ্বল হয়ে পড়ে। সে ভাবে চোরেরা যে পাপকাজের বিনিময়ে এসব সংগ্রহ করেছে, যা অলিপর্বার সততা, পরোপকার আর কর্তব্যবোধের জন্য খুশি হয়ে ঈশ্বর তাকে হাত ধরে এখানে নিয়ে এসেছে। তাঁর দয়া না-হলে ঐ ধনরত্নের সন্ধান সে পেত না। এই কথা ভেবে সে তার গাধাগুলি যতটা বহন করতে পারে সেই পরিমাণ বস্তায় পূর্ণ করে

“ততোঽসৌ স্বর্ণপূর্ণাস্তাবতীরজিনগোণীরাদদে।”

Leave a Comment