কালী পূজার মন্ত্র, দক্ষিণকালিকা স্তোত্রম্

কালী পূজার মন্ত্র পিডিএফ ও ২০২২-এর কালীপুজোর তারিখ – নির্ঘণ্ট। কালী পূজার আচমন মন্ত্র, প্রার্থনা মন্ত্র, গায়ত্রী মন্ত্র, প্রণাম মন্ত্র, পুষ্পাঞ্জলি মন্ত্র, ধ্যান মন্ত্র, দক্ষিণকালিকা স্তোত্রম্ pdf ।

2022 কালী পূজার মাস কার্তিক মাস
2022 কালী পূজার তারিখ ২৪ অক্টোবর, সোমবার সন্ধ্যা ৪/৫৭/৬ থেকে
২৫ অক্টোবর অপঃ ৪/২৬/২৬ মিনিট
অমৃত যোগ দিবা ঘ ৭।২০ মধ্যে ও ৮।৪৮ গতে ১০।৫৯ মধ্যে এবং রাত্রি ঘ ৭/২৬ গতে ১০/৫৫ মধ্যে ও ২/২৪ গতে ৩/১৬ মধ্যে।
তিথি অমাবস্যা তিথি

Table of Contents

কালী পূজার মন্ত্র

২০২২-এর কালীপুজোর তারিখ – নির্ঘণ্ট

না দিবা পূজায়দ্দেবীং রাত্রৌ নৈব চ নৈবচ।
সর্বদা পূজয়ে দেবীং দিবা রাত্রৌ বিবর্জয়েৎ।।

রহস্যপূজায় বলা হয়েছে-

দিবাচার্দ্ধ প্রহরিকা চাদ্যন্তে পরমেশ্বরী।
ঋতু দন্ডাত্নিকা সা চ রাত্রিরুক্তা মনীষিভিঃ
ততো বৈ দশ নাড্যন্ত নিশা মহানিশা স্মৃতাঃ।
সর্বদা চ সমাখ্যাতা সর্ব সাধন কর্ম্মনি।

সূর্যাস্তের পর অর্দ্ধপ্রহর বা চারদন্ড সময় অর্থাৎ ৯৬ মিনিট সময়কে বলা হয় দিবা। তারপর ছয়দন্ড অর্থাৎ ১৪৪ মিনিট সময়কে বলা হয় রাত্রি। অর্থাৎ সূর্যাস্তের প্রথম দশ দন্ড অর্থাৎ ৪ঘন্টা দিবা ও রাত্রি। তারপর দশ দন্ডকাল অর্থাৎ ৪ ঘন্টা হচ্ছে নিশা ও মহানিশা। এটাই দেবী পূজার প্রশস্ত সময়। কার্তিক মাসে সাড়ে পাঁচটায় সূর্যাস্ত। তারপর চার ঘন্টা বাদ দিয়ে পূজায় বসতে হবে এবং রাত্রি একটার মধ্যে পূজো সমাপ্ত করতে হবে। আবার রাত্রি দেড়টার পর সূর্যোদয় পর্যন্ত সময়কে বলা হয় দিবারাত্রি।

আগামী ২৪ অক্টোবর, সোমবার। অমাবস্যা তিথি ২৪ অক্টোবর, সন্ধ্যা ৪/৫৭/৬ থেকে ২৫ অক্টোবর অপঃ ৪/২৬/২৬ মিনিট পর্যন্ত অমাবস্যা তিথি থাকবে। অমৃত যোগ দিবা ঘ ৭।২০ মধ্যে ও ৮।৪৮ গতে ১০।৫৯ মধ্যে এবং রাত্রি ঘ ৭/২৬ গতে ১০/৫৫ মধ্যে ও ২/২৪ গতে ৩/১৬ মধ্যে।

কালী পূজার আচমন মন্ত্র

ওঁ বিষ্ণু ওঁ বিষ্ণু ওঁ বিষ্ণু
ওঁ তদ বিষ্ণুঃ পরমং পদম্। 
সদা পশ্যন্তি সুরয়ঃ, দিবীব চক্ষুরাততম্
ওঁ অপবিত্র‌‌ পবিত্র বা সব্বাবস্তাং গতোহপি বা।
যঃ স্মরেৎ পুন্ডরীকাক্ষং স বাহ্যাভ্যন্তরঃ শুচি
ওঁ বিষ্ণু ওঁ বিষ্ণু ওঁ বিষ্ণু।

কালী পূজার প্রার্থনা মন্ত্র 

‘এষ ধুপঃ ওঁ ক্রীং কাল্ল্যৈ নমঃ’ ।

কালী পূজার গায়ত্রী মন্ত্র

ওঁ কালিকায়ৈ বিদ্মহে শশ্মানবাসিন্যৈ ধীমহি তন্নো ঘোরে প্রচোদয়াৎ।

কালী পূজায় পঞ্চফল প্রদানের মন্ত্র 

‘ওঁ নমঃ ক্রীং কাল্ল্যৈ নমঃ পঞ্চফলম সমর্পয়ামি।’ 

মা কালিকে পুষ্প প্রদানের মন্ত্র 

ষ গন্ধপুষ্পে ওঁ ক্রীং কাল্ল্যৈ নমঃ’ 

মা কালিকে কর্পূর প্রদানের মন্ত্র  

‘ওঁ নমঃ ক্রীং কাল্ল্যৈ নমঃ আরাত্রিকম সমর্পয়ামি।’ 

মা কালিকে দুধ স্নানাদি প্রদানের মন্ত্র 

ক্রীং কাল্ল্যৈ নমঃ পয়স্নানাম সমর্পয়ামি।’ 

কালীর কাছে অপরাধ ক্ষমা প্রার্থনা মন্ত্র

ওঁ নমঃ যদক্ষরং পরিভ্রষ্টং মাত্রাহীনঞ্চ যদ্ ভবেৎ ৷  

পুরনং ভবতু যৎ সর্ব, তৎ প্রসাদৎ সুরেশ্বরী ৷৷

কালী পূজার কবচ মন্ত্র 

ভৈরব উবাচ

 কালিকা যা মহাবিদ্যা কথিতা ভুবি দুর্ল্লভা

 তথাপি হৃদয়ে শল্যমস্তি দেবি কৃপাং কুরু।

 কবচন্ত মহাদেবী কথয়সানুকম্পা

 যদি নো কথ্যতে মাতব্বিমুঞ্চামি তদা তনুম।।

কালী পূজার প্রণাম মন্ত্র 

নমঃ কালী কালী মহাকালী কালীকে পাপহারিণী।

ধর্ম্মার্থ মোক্ষদে দেবী নারায়ণী নমোহস্তুতে।

সর্বমঙ্গল মঙ্গল্যে শিবে সর্বার্থ সাধিকে।

শরণ্যে ত্রম্বকেগৌরি নারায়ণী নমোহস্তুতে।।

ক্রীং ক্রীং হৃং হৃং হিং হিং দক্ষিণে কালীকে

ক্রীং ক্রীং ক্রীং হৃং হৃং হ্রীং  হ্রীং হ্রীং স্বহা।

ওঁ নমঃ কালী কালী মহাকালী কালীকে পাপহারিণী

ধর্মার্থমোক্ষদে দেবী নারায়ণী নমোস্তুতে।।

কালী পূজার প্রণাম মন্ত্র

জয়ন্তী মঙ্গলাকালী ভদ্রকালী কপালিনী

দূর্গাশিবা সমাধ্যাতীসাহা সুধা নমস্তুতে।

ওঁ নমঃ শিবায় শান্তায় কারণত্রয়হেতবে
নিবেদয়ামি চাত্মানংত্বং গতিঃ পরমেশ্বরঃ।।

ওঁ নমঃ কালি কালি মহাকালি কালিকে
পাপহারিনি দেবী নারায়ণী নমস্তুতে।
মহিষাঘ্নি মহামায়ে চামুণ্ডে মুণ্ডমালিনী
আয়ুরোগয় বিজয়ং দেহি দেবী নমস্তুতে।।

ওঁ নমঃ কালি কালি মহাকালি কালিকে পাপহারিনি।
ধর্ম্মকামপ্রদে দেখি নারায়ণী নমোহস্তুতে।।

এষ সচন্দন গন্ধপুষ্প বিল্বপত্রাঞ্জলিঃ শ্রীমদ্দক্ষিণাকালিকায়ৈ নমঃ।।

কালী পূজার ১০৮ বার জপ মন্ত্র 

ওঁ নমঃ ক্রীং কাল্ল্যৈ নমঃ।

কালী পূজার জপের মন্ত্র

ক্রীং ক্রীং ক্রীং হুং হুং হ্রীং হ্রীং দক্ষিণ কালিকে ক্রীং ক্রীং ক্রীং হুং হুং হুং স্বাহা।

ওঁ নমঃ গুহ্যাতিগুহ্য গোপ্তৃীং ত্বং গৃহানস্মতং কৃতং জপো, সিদ্ধির্ভবতু মে দেবি তৎ প্রসাদৎ সুরেশ্বরী ৷৷

কালীর বন্দনা মন্ত্র

ওঁ নমঃ মহামায়ে জগন্মাত কালিকে ঘোর দক্ষিণে ৷

 গৃহাণ্ বন্দনে দেবী নমস্তে শংকর প্রিয়ে ৷৷

 ওঁ প্রচন্ডে পুত্রদে নিত্যং সুপ্রীতে সুর নায়িকে ৷

 কুলদ্যোতকরে চোগ্রে জয়ং দেহী নমোহস্তুতে ৷৷

কালীর আচমন মন্ত্র

ওঁ নমঃ বিষ্ণু। ওঁ নমঃ বিষ্ণু। ওঁ নমঃ বিষ্ণু।

বিষ্ণু স্মরণ মন্ত্র

নমঃ অপবিত্রঃ পবিত্রো বা সর্বাবস্থাং গতোহপি বা।

যঃ স্মরেৎ পুন্ডরীকাক্ষং স বাহ্যাভ্যন্তরঃ শুচিঃ।।

কালী পূজার পুষ্পাঞ্জলি মন্ত্র

ওঁ নমঃ ওঁ বিষ্ণু ওঁ বিষ্ণু ওঁ বিষ্ণু। 

 ওঁ নমঃ অপবিত্র‌‌ পবিত্র বা সব্বাবস্তাং গতোহপি বা। 
যঃ স্মরেৎ পুন্ডরীকাক্ষং স বাহ্যাভ্যন্তরঃ শুচি। 
ওঁ বিষ্ণু ওঁ বিষ্ণু ওঁ বিষ্ণু

[কালী পূজার পুষ্পাঞ্জলি মন্ত্র ১]

ওঁ নমঃ কালি কালি মহাকালি কালিকে পাপহারিনি
ধর্ম্মকামপ্রদে দেখি নারায়ণী নমোহস্তুতে।
মহিষাঘ্নি মহামায়ে চামুণ্ডে মুণ্ডমালিনী
আয়ুরোগয় বিজয়ং দেহি দেবী নমস্তুতে।।

এষ সচন্দন গন্ধপুষ্প বিল্বপত্রাঞ্জলিঃ শ্রীমদ্দক্ষিণাকালিকায়ৈ নমঃ।।

[কালী পূজার পুষ্পাঞ্জলি মন্ত্র ২]

ওঁ নমঃ সর্বমঙ্গলা মঙ্গল্যে শিবে সর্বার্থসাধিকে
উমে ব্রক্ষাণি কৌমারী বিশ্বরূপে প্রসীদ মে ।
ভগবতী ভয়চ্ছেদে কাত্যায়নী চ কামদে
কালকৃৎ কৌশিকী ত্বং হি কাত্যায়নী নমোহস্তুতে ।।

এষ সচন্দন গন্ধপুষ্প বিল্বপত্রাঞ্জলিঃ শ্রীমদ্দক্ষিণাকালিকায়ৈ নমঃ।।

[কালী পূজার পুষ্পাঞ্জলি মন্ত্র ৩]

ওঁ নমঃ প্রচন্ডে পুত্রদে নিত্য সুপ্রীতে সুরনায়িকে
 কুলদ্যোতকরে চোগ্রে জয়ং দেহি নমোহস্তুতে।
 সৃষ্টিস্থিতি বিনাশানাং শক্তিভূতে সনাতনী 
গুনাশ্রয়ে গুনময়ে নারায়ণী নমোহস্তুতে।।

এষ সচন্দন গন্ধপুষ্প বিল্বপত্রাঞ্জলিঃ শ্রীমদ্দক্ষিণাকালিকায়ৈ নমঃ।।

কালী পূজার ধ্যান মন্ত্র

ওঁ নমঃ শবারুঢ়াং মহাভীমাং ঘোরদংস্ট্রাং বরপ্রদাম্।
হাস্যযুক্তাং ত্রিনেত্রাঞ্চ কপালকর্তৃকাকরাম্।।
মুক্তকেশীং লোলজিহ্বাং পিবন্তীং রুধিরং মুহু।
চতুর্ব্বাহু যুতাং দেবীং বরাভয়করাং স্মরেৎ।।

কালী পূজার মন্ত্র পাঠ

শংকাপি জায়তে বৎস তব স্নেহাৎ প্রকাশিতম।

 ন বক্তব্যং ন দ্রষ্টব্যমতি গুহ্যতমং মহৎ।।

 কালিকা জগতাং মাতা শোকদুঃখাদি বিনাশিনী।

 বিশেষত কলি যুগে, মহাপাতকহারিণী।।

 কালী মে পুরুত: পাঠু পৃষ্ঠতশ্চ কপালিনী।

 কুল্বা মে দক্ষিনে পাতু করণৌ চগ্রোপ্রভামতা।।

 বদনং পাতু মে দীপ্তা নীলা চ চিবুকং সদা।

 ঘনা গ্রীবাং সদা পাতু বলাকা বাহুযুগ্মকম।।

 মাত্রা পাতু করদ্বন্দং বক্ষো মুদ্রা সদাবতু।

 মিতা পাতু স্তনদ্বন্দং যোনিং মন্ডল দেবতা।

 ব্রাম্মী মে জঠরং পাতু, নাভিং নারায়ণীং তথা।

 ঊরু মাহেশ্মরী নিত্যং চামুন্ডা পাতু লিঙ্গকম।

 কৌমারী চ কটিং পাতু তথৈব জানুযুগ্মকম।

 অপরাজিতা পাদৌ মে বারাহী পাতু চাঙ্গুলী: ।

 সন্ধিস্থানং নারসিংহী পত্রস্থা দেবতাবতু

 রক্ষাহীনঞ্চ যৎ স্থানং বর্জ্জিতং কবচেন তু।

 তৎ সর্ব্বং রক্ষ মে দেবী কালিকে ঘোর দক্ষিণে।

 ঊর্দ্ধং-মধ্যস্তথা দিক্ষু পাতু দেবী স্বয়ং বপুঃ।।

 হিংস্রেভ্যঃ সর্ব্বদা পাতু সাধকঞ্চ জলাধিকাৎ।

 দক্ষিণা কালিকে দেবী ব্যাপকত্তে সদাবতু।

 ইদং কবচমজ্ঞাতা যো জপেদ্দেবদক্ষিনাম

 ন পুজাফলমাপ্নোতি বিঘ্নস্তস্য পদে পদে।

 কবচেনাবৃতো নিত্যং যত্র তত্রৈব গচ্ছতি

 তত্র তত্রভয়ং তস্য ন ক্ষোভং বিদ্যতে ক্কচিৎ।


দক্ষিণকালিকা স্তোত্রম্

ওঁ কৃশোদরি মহাচণ্ডী মুক্তকেশিং বলীপ্রিয়ে।

 কুলাচারপ্রসন্নাস্যে নমস্তে শঙ্করপ্রিয়ে।।

 ঘোরদংষ্ট্রে কোটোরাক্ষি কিটিশব্দ প্রসাধিনী।

 ঘুরঘোররাবাস্ফারে নমস্তে চিতাবাসিনী।।

 বন্ধুকপুষ্পসঙ্কাশে ত্রিপুরে ভয়নাশিনী।

 ভাগ্যোদয়সমুৎপন্নে নমস্তে বরবন্দিনী।।

 জয় দেবি জগদ্ধাত্রী ত্রিপুরাদ্যে ত্রিদেবতে।

 ভক্তেভ্যো বরদে দেবি মহষঘ্নি নমোহস্তুতে।।

 ঘোরবিঘ্নবিনাশায় কুলাচারসমৃদ্ধয়ে।

 নমমি বরদে দেবি মুণ্ডমালা বিভূষনে।।

 রক্তধারাসমাকীর্ণে করকাঞ্চীবিভূষিতে।

 সর্ব্ববিঘ্নহরে কালী নমস্তে ভৈরবপ্রিয়ে।।

 নমস্তে দক্ষিণামূর্ত্তে কালী ত্রিপুরভৈরবী।

 ভিন্নাঞ্জনচয়প্রক্ষে প্রবীণশবসংস্থিতে।।

 গলচ্ছ্রোণিতধারাভিঃ স্মেরাননসরোরুহে।

 পীনোন্নতকুচদ্বন্দ্বো নমস্তে ঘোরদক্ষিণে।।

 আরক্তমুখশান্তাভির্নেত্রালিভির্বিরাজিতে।

 শবদ্বয় কৃতোত্তংসে নমস্তে মদবিহ্বলে।।

 পঞ্চাশন্মুণ্ডঘটিতমালা লোহিত লোহিতে।।

 নানামণিবিশোভাঢ্যে নমস্তে ব্রহ্মসেবিতে।।

 শবাস্থিকৃতকেয়ুর, শঙ্খ-কঙ্কন-মণ্ডিতে।

 শববক্ষঃ সমারুঢ়ে নমস্তে বিষ্ণুপূজিতে।।

 শবমাংস কৃতগ্রাসে অট্টহাসে মুহুর্মুহু।

 মুখশীঘ্রস্মিতামোদে নমস্তে শিববন্দিতে।।

 খড়্গমুণ্ডধরে বামে সব্যে (অ) ভয়বরপ্রদে।

 দন্তুরে চ মহারৌদ্রে নমস্তে চণ্ডনাদিতে।।

 ত্বং গতিঃ পরমা দেবি ত্বং মাতা পরমেশ্বরী।

 ত্রাহি মাং করুণাসাদ্রে নমস্তে চণ্ডনায়িকে।।

 নমস্তে কালিকে দেবি নমস্তে ভক্তবৎসলে।

 মুর্খতাং হর মে দেবি প্রতিভা জয়দায়িনী।।

 গদ্যপদ্যময়ীং বাণীং তর্কব্যাকরণাদিকম্।

 অনধীতগতাং বিদ্যাং দেহি দক্ষিণকালিকে।।

 জয়ং দেহি সভামধ্যে ধনং দেহি ধনাগমে।

 দেহি মে চিরজীবিত্বং কালিকে রক্ষ দক্ষিণে।।

 রাজ্যং দেহি যশো দেহি পুত্রান্ দারান্ ধনং তথা।

 দেহান্তে দেহি মে মুক্তিং জগন্মাতঃ প্রসীদ মে।।

 ওঁ মঙ্গলা ভৈরবী দুর্গা কালিকা ত্রিদশেশ্বরী।

 উমা হৈমবতীকন্যা কল্যাণী ভৈরবেশ্বরী।।

 কালী ব্রাহ্মী চ মাহেশী কৌমারী বৈষ্ণবী তথা।

 বারাহী বাসলী চণ্ডী ত্বাং জগুর্ম্মুনয়ঃ সদা।।

 উগ্রতারেতি তারেতি শিবত্যেকজটেতি চ।

 লোকোত্তরেতি কালেতি গীয়তে কৃতিভিঃ সদা।।

 যথা কালী তথা তারা তথা ছিন্না চ কুল্লকা।

 একমূর্ত্তিশ্চতুর্ভেদ দেবি ত্বং কালিকা পুরা।।

 একত্রিবিধা দেবী কোটিধানন্তরূপিনী।

 অঙ্গাঙ্গিকৈর্নামভেদৈঃ কালিকেতি প্রগীয়তে।

 শম্ভুঃ পঞ্চমুখেনৈব গুণান্ বক্তুং ন তে ক্ষমঃ।

 চাপল্যৈর্যৎ কৃতং স্তোত্রং ক্ষমস্ব বরদা ভব।।

 প্রাণান্ রক্ষ যশো রক্ষ পুত্রান্ দারান্ ধনং তথা।

 সর্ব্বকালে সর্ব্বদেশে পাহি মাং দক্ষিণকালিকে।।

 যঃ সংপূজ্য পঠেৎ স্তোত্রং দিবা বা রাত্রিসন্ধ্যায়োঃ।

 ধনং ধান্যং তথা পুত্রং লভতে নাত্র সংশয়।।

 শ্রীমন্মহাকালবিরচিত শ্রীমদ্দক্ষিণকালিকাস্তোত্রং সম্পূর্ণম্।।


কালী পূজা চন্ডীপাঠ

কালী পূজা চন্ডীপাঠ

কালী মন্ত্র কি?

‘ওঁ ক্রীং ক্রীং হৃং হৃং হিং হিং দক্ষিণে কালীকে ক্রীং ক্রীং ক্রীং হৃং হৃং হ্রীং হ্রীং হ্রীং স্বহা। ধর্মার্থমোক্ষদে দেবী নারায়ণী নমোস্তুতে। 

মা কালীর বীজ মন্ত্র কি?

কালী বীজ মন্ত্র: “ওঁ ক্রীং কালীকায় নমঃ“, এই মন্ত্রটিই হিন্দু শাস্ত্রে কালী বীজ মন্ত্র নামে পরিচিত।

কালী সাধনা করলে কি হয়?

কালীর উপাসনা করলে বেকারত্ব, কেরিয়ার ও শিক্ষা ক্ষেত্রে অসাফল্যের হাত থেকে মুক্তি সম্ভব। ব্যবসায় লাভ ও চাকরিতে পদোন্নতি সম্ভব।

মা কালীর কত নাম?

কালী বা কালিকা হলেন হিন্দু দেবী। তার অন্য নাম শ্যামা বা আদ্যাশক্তি।

মা কালীর স্বামীর নাম কি?

ভারতীয় উপমহাদেশে কালীকে ভগবান শিবের স্ত্রী পার্বতীর রূপ হিসাবে বিশ্বাস করা হয়। কেরালার লোকবিশ্বাস অনুসারে— ভগবান শিবের তৃতীয় নয়ন থেকে রাক্ষসদের ধ্বংস করার জন্য তিনি আবির্ভূতা হন, তাই কেরালায় তাঁকে ভৌরবকন্যা মহাকালী বলা হয়।

চামুন্ডা কে?

চামুন্ডা হলেন আদিশক্তি, আবার তিনিই ভগবতী দূর্গা। চণ্ড ও মুণ্ড নামে দুই অসুরকে হত্যা করে তিনি ‘চামুণ্ডা’ নামে পরিচিত হন। চামুণ্ডাকে দেবী কালীর অপর রূপ মনে করা হয়। পার্বতী, চণ্ডী, দুর্গা, চামুণ্ডা ও কালী এক ও অভিন্ন।

শব সাধনা কি?

মৃতদেহে বসে কল্পনা করার সময় সাধনা করা হয়।

মা কালীর রং কালো কেন?

কথিত আছে, সাপের বিষাক্ত ছোবলে মানব দেহ নীল হয়ে যায়। আমাদের সমাজের কটূক্তির বিষাক্ত ছোবলে একজন নারীর মন ও শরীর কালো হয়ে ওঠে। আর সেই সব প্রত্যাঘাত করতে প্রতীক হিসাবে মহাকালীর গায়ের রং কাল ।

মা কালী কত প্রকার?

দক্ষিণাকালী, ভদ্রকালী, শ্মশানকালী, কালকালী, গুহ্যকালী, কামকলাকালী, ধণকালিকা, সিদ্ধিকালী, সিদ্ধিকালী, চণ্ডিকালিকা।

মা কালী শিবের বুকে পা দিয়েছেন কেন?

দেবীর ক্রোধের সামনে কোন দেবতার পক্ষে দাঁড়ানো কঠিন হয়ে পড়ছিল। তখন সমস্ত দেবতারা শিবের কাছে সাহায্য প্রার্থনা করেন। দেবতাদের অনুরোধে, মহাদেব সেখানে পৌঁছে গোপনে গিয়ে মাটিতে শুয়ে পড়েন। অসুর নিধন করতে করতে উন্মত্ত মহাকালী হঠাৎ শিবের বুকে পা রাখেন।


কালী পূজার মন্ত্র, দক্ষিণকালিকা স্তোত্রম্ ছাড়া অন্য মন্ত্র গুলি

Leave a Comment